তাঁর সম্পর্কে অশালীন মন্তব্য করার অভিযোগ তুলে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র বিরুদ্ধে আলিপুর থানায় এফআইআর দায়ের করলেন তৃণমূল বিধায়ক মহুয়া মৈত্র।

চলতি মাসের তিন তারিখ একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে ‘লাইভ’ বিতর্কে অংশ নিয়েছিলেন বাবুল ও মহুয়া। মহুয়ার অভিযোগ, বিতর্ক চলাকালীন তাঁর উদ্দেশে কটূক্তি’ করেন বাবুল। পুলিশ জানিয়েছে, চার তারিখ এ ব্যাপারে এফআইআর দায়ের করেছেন মহুয়া। অভিযোগের ভিত্তিতে মহুয়ার গোপন জবানবন্দিও নিয়েছেন ম্যাজিস্ট্রেট। এর পর তাদের যা যা করণীয়, তাই করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ। বাবুলের বিরুদ্ধে ৫০৯ ধারায় (মহিলার উদ্দেশে অশালীন শব্দ ব্যবহার বা অঙ্গভঙ্গি) মামলা রুজু হয়েছে।

মহুয়া এ দিন জানান,সে দিন টিভি চ্যানেলের লাইভ শো-তে তৃণমূল নেতাদের গ্রেফতারি নিয়ে আলোচনা ও তর্কাতর্কি চলার সময় হঠাৎই বাবুল তাঁকে বলে বসেন, ‘‘মহুয়া তুমি

কি মহুয়া খেয়ে আছো?’’ তৃণমূল বিধায়ক বলেন,‘‘ওঁর সঙ্গে আমার কোনও রকম ব্যক্তিগত বন্ধুত্ব নেই, কখনও মুখোমুখি কথা পর্যন্ত হয়নি। উনি এক জন মন্ত্রী হয়ে, সারা দেশের সামনে, সংবাদমাধ্যমের আলোচনায় এ কথা বলে আমায় রীতিমতো অপমান করেছেন। এক জন মহিলা হিসেবে আমার আইনি অধিকার আমি বুঝে নেব।’’

এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে অবশ্য আসানসোলের বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, ‘‘আমি সবটাই শুনেছি। এ রকমও শুনেছি, কাল, মঙ্গলবার সকালে আমি কলকাতা পৌঁছনোমাত্র আমায় নাকি গ্রেফতার করা হবে। কিন্তু আমি কোনও খারাপ ব্যবহার করিনি মহুয়ার সঙ্গে।’’ বাবুলের পাল্টা অভিযোগ, মহুয়া ওই অনুষ্ঠানে নানা রকম অবাস্তব অভিযোগ তুলেছিলেন তাঁর এবং প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে। তাঁর দাবি, মহুয়ার উত্তেজিত বাক্যবাণের মুখে তিনি মজা করেই ওই কথাটা বলেছিলেন। যদিও বাবুলের যুক্তি শুনতে নারাজ মহুয়া। বরং এই জাতীয় মুখপাত্র জানিয়ে দেন,‘‘মজা কি না, সেটা আইনই বলবে।’’