ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ পেতে চান? সাহায্য করবে পেটিএম

প্রতীকী ছবি।

ব্যাঙ্ক ঋণ চেয়েও পাচ্ছেন না? বা ব্যাঙ্ক কি আপনার উপর ভরসা করতে পারছে না? তা হলে আপনার জন্য সুখবর। এ বার পেটিএমই হবে আপনার ‘গ্যারেন্টার’! এ ক্ষেত্রে গ্যারেন্টার অবশ্য আপনার শোধ না দেওয়া ঋণের টাকা মেটাবে না। আপনি যে সৎ, ব্যাঙ্কের ঋণ খেলাপ করবেন না, তার গ্যারান্টি দেবে পেটিএম। সম্প্রতি পেটিএমের সিইও হরিন্দর তাখর এই ঘোষণা করেছেন।

কী ভাবে? পেটিএম এর জন্য একটি বিশেষ অ্যালগরিদমের সাহায্য নেবে। সেই অ্যালগরিদম হিসাব রাখবে আপনি পেটিএমের লেনদেনগুলো কী ভাবে করছেন। অর্থাৎ ধরুন ক্রেডিট কার্ডের বিল মেটাচ্ছেন, তা হলে কত সময় পর বিল মেটাচ্ছেন বা এককালীন কত টাকা মেটাচ্ছেন এ সব হিসেব কষে আপনার একটি ‘ক্রেডিবিলিটি স্কোর’ তৈরি করবে পেটিএম। সেই স্কোর অনুযায়ী আপনার একটি সততার মাপকাঠিও তৈরি হবে।

এ বার ধরা যাক, ঋণের জন্য ব্যাঙ্কে আবেদন করেছেন। ব্যাঙ্ক আপনাকে ভরসা করে ঋণ দেবে কি না, তা ইচ্ছা করলে পেটিএমের থেকেই জানতে পেরে যাবে। এতে সুবিধা হল, ব্যাঙ্ক যদি কোনও গ্রাহককে ঋণ দেওয়া নিয়ে দ্বিধাগ্রস্ত থাকে, পেটিএমের মাধ্যমে এই দ্বিধা কেটে যাবে। আবার অন্য দিকে, ধরুন ব্যাঙ্ক এমন কোনও গ্রাহককে ঋণ দেওয়ার পরিকল্পনা করে ফেলেছিল, যে গ্রাহকের ক্রেডিবিলিটি স্কোর আসলে ভাল নয়। তা হলে পেটিএমের থেকে তাঁর সম্বন্ধে রেকর্ড পেয়ে ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত বদলে ফেলতে পারে। বড়সড় ঋণ খেলাপ থেকেও মুক্তি মিলতে পারে ব্যাঙ্কের।

আরও পড়ুন: সিনেমা হলের মেঝে খুঁড়তেই বেরিয়ে এল রাশি রাশি স্বর্ণমুদ্রা!

তবে ঋণের আবেদন করা যে সমস্ত গ্রাহক পেটিএম ব্যবহার করেন, একমাত্র তাঁদের ক্ষেত্রেই এটা প্রযোজ্য। কী পদ্ধতিতে, কোন অ্যালগরিদম অনুসরণ করে পেটিএম গ্রাহকের ‘ক্রেডিবিলিটি স্কোর’ বিচার করবে, তা তৈরি করতে পেটিএমের টরন্টোর অফিসে ইতিমধ্যেই কাজ শুরু করে দিয়েছেন ১০০ কর্মী।