POWERED BY
CO-POWERED BY
Back to
Advertisment

উৎসবের গ্যালারি

Anindita Bose: ‘সারা বছর যতই জামা কিনি, পুজোয় আমার নতুন শাড়ি চাই’, আবদার অনিন্দিতার

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১৬:৫৬
ছিপছিপে চেহারা, ঈর্ষণীয় মুখের গড়ন এবং সকলকে তাক লাগিয়ে দেওয়ার মতো সাজের কায়দার জন্য জনপ্রিয় অনিন্দিতা বসু। কেমন সাজবেন এ বার পুজোয়?

নেটফ্লিক্সে ‘রে’ মুক্তি পাওয়ার পর থেকেই ব্যস্ততা বেড়েছে অভিনেত্রীর। ইদানীং এই শহর ছেড়ে মুম্বই-ই হয়ে উঠেছে তাঁর বাসস্থান। তা-ও দু’দিনের কলকাতা সফরের মাঝে ‘আনন্দবাজার অনলাইন’এর  জন্য ছবি তোলার সময় বার করলেন অনিন্দিতা।
Advertisement
সাজগোজ বরাবরই পছন্দ অনিন্দিতার। তাই সাজোর ছবি তোলার প্রসঙ্গ তুলতেই তিনি এক কথা রাজি। শ্যুটে এসে প্রথমেই বললেন, ‘‘ভাগ্যিস ঠিক সময়ে হোয়াটস্‌অ্যাপ করেছিলে। না হলে আমি তো এখন মুম্বইয়েই  বেশি থাকছি।’’ কিন্তু পুজোর সময়ে কী হবে? ‘‘ইচ্ছে আছে কলকাতা ফেরার, দেখা যাক,’’ বললেন অনিন্দিতা।

পুজো যেখানেই কাটুক, নতুন শাড়ি চাই-ই চাই। সারা বছর টি-শার্ট ডেনিম পরেই সবচেয়ে বেশি স্বচ্ছন্দ অনিন্দিতা। কিন্তু পুজোর সময়ে তাঁর মা-ই  অনেকগুলি নতুন শাড়ি কিনে রাখেন তাঁর জন্য। এখন সারা বছর নানা রকম ছাড় চলে অনলাইন বিপণিগুলোয়। সেখান থেকে টুকটাক কেনাকেটা চলতেই থাকে সকলের। তার পর কি আর নতুন করে পুজো উপলক্ষে কেনা হয়? প্রশ্ন শুনে সঙ্গে সঙ্গে অনিন্দিতার উত্তর, ‘‘ওমা পুজোর সময়ে নতুন জামা না কিনলে হয়! এখনও মা আমার জন্য শাড়ি কিনে রাখেন। এবেলা-ওবেলা নতুন শাড়ি পরার মজাই আলাদা।’’
Advertisement
গল্প করতে করতেই চলল ছবি তোলার কাজ। কোন শাড়ির সঙ্গে কোন গয়না পরবেন, চুলের কায়দা কেমন হবে, চোখের সাজ কেমন হবে, সব দিকে খুঁটিয়ে নজর রাখছেন অনিন্দিতা। তিনি যে সাজপোশাক নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে ভয় পান না, তা তাঁর ইনস্টাগ্রাম খুললেই টের পাওয়া যায়। পশ্চিমি পোশাকে তিনি যতটা স্বচ্ছন্দ, ভারতীয় সাজেও ততটাই সাবলীল।

অনিন্দিতার ছিপছিপে চেহারা এবং মেদহীন কোমর অনেকের কাছে স্বপ্নের মতো। তবে তার পিছনে যথেষ্ট কসরত রয়েছে তাঁর। ছবি তোলার সময়ে বাকিরা টুকটাক খেলেও অভিনেত্রী কফি ছাড়া আর কিছুই খেলেন না। নিয়মিত শরীরচর্চা করা এবং খাওয়াদাওয়ার দিকে নজর রাখেন তিনি। ঘুম নিয়েও কড়া নিয়ম তাঁর। রোজ সাড়ে ৬টার মধ্যে উঠে পড়েন এবং রাতে যতটা পারেন তাড়াতাড়ি ঘুমোতে যান তিনি।

কিন্তু পুজোর সময়েও কি এতটাই কড়া শৃঙ্খলা মেনে চলেন তিনি। এক গাল হেসে অনিন্দিতা জানালেন, ‘‘পুজোর সময় সব মাফ। তখন যাতে মন ভরে খেতে পারি, তাই তো এখন বেশি পরিশ্রম করছি। ওই ক’দিন কিছু বাদ পড়ে না। সব রকম খাবার খাই আমি।’’

ছবি তোলার পালা শেষ হল তাড়াতাড়ি। কারণ পরের দিনই অনিন্দিতা ফের মুম্বই উড়ে যাচ্ছেন। এত বার কলকাতা-মুম্বই করতে অসুবিধা হচ্ছে না? কলকাতার বাড়ি-ঘর তিনি মিস্‌ করেন না। ‘‘আমি তো মুম্বইয়েরই মেয়ে। ওখানেই বড় হয়েছি। দু-দু’টো বাড়ি আছে আমাদের ওই শহরে। তাই আমার কাছে এটা বাড়ি ফেরাই বলতে পারেন,’’ উত্তর অভিনেত্রীর।

ছবি: দেবর্ষি সরকার। রূপটান শিল্পী: মৈনাক দাস। সাজ: অনুপম চট্টোপাধ্যায়। পোশাক: ওয়ার্সি কলকাতা, পরমা, উম্যায়রা। গয়না: করিশ্মা’জ। ভাবনা ও পরিবেশন: পৃথা বিশ্বাস। স্থান: হার্ড রক ক্যাফে