ঘূর্ণিঝড় 'মোরা' ছোবল দেয়ার দুই সপ্তাহ না পেরোতেই পশ্চিম মধ্য বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হয়েছে আরও একটি লঘুচাপ। উত্তর বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপের প্রভাবে ঝড়ো হাওয়ার আশঙ্কায় বাংলাদেশের চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলেছে বাংলাদেশের আবহাওয়া দফতর। লঘুচাপটি আরও ঘনীভূত হয়ে মৌসুমী নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে এমন আশঙ্কাও করছেন আবহাওয়াবিদরা।

শনিবার সন্ধ্যায় আবহাওয়া দফতর এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, লঘুচাপের প্রভাবে ভারতের উত্তর অন্ধ্রপ্রদেশ ও দক্ষিণ ওড়িশা উপকূলের অদূরে পশ্চিম মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন উত্তর বঙ্গোপসাগর এলাকায় গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালা তৈরি হচ্ছে। ফলে উত্তর বঙ্গোপসাগর এবং বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকার উপর দিয়ে ঘণ্টায় ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার গতির ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ কারণে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত জারি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: চোরাবাজারি চিনা অস্ত্রশস্ত্রই মিলেছে বাংলাদেশে রূপগঞ্জের খালে

লঘুচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে রুপ নিলে তার নাম হবে ‘অক্ষি’। এমনটিই বললেন বাংলাদেশের আবহাওয়াবিদ শামীম হাসান ভূঁইয়া। তিনি জানালেন, সোমবার সকাল নাগাদ লঘুচাপের গতিপথ সম্পর্কে নিশ্চিতভাবে জানা যাবে। লঘুচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ না নিলেও, এর প্রভাবে বৃষ্টিপাত হতে পারে। তাপমাত্রা কমতে পারে- ফলে যেসব অঞ্চলে এখন মৃদু তাপ প্রবাহ বইছে, সেখানেও গরমের দাপট কমার সম্ভাবনা রয়েছে।
গত ৩০ মে কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম উপকূলে আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’। প্রাণহানি এবং অন্যান্য ক্ষয়ক্ষতি হয় সেই ঘূর্ণিঝড়ে।