বকেয়া ঋণের আসল নয়। শুধু সুদ মেটালেই দেউলিয়া সংস্থার মালিকেরা নিজেদের সম্পত্তি নিলামে অংশ নিতে পারবেন। দেউলিয়া বিধিতে সংশোধনী বিলের হাত ধরে এ ভাবেই ব্যাঙ্কের অনুৎপাদক সম্পদ ছাঁটার রাস্তা খুলতে চেয়েছে কেন্দ্র। আজ, শুক্রবার এই বিলকে পাকা আইনে পরিণত করতে গিয়ে তার পক্ষে অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির যুক্তি ছিল এটাই।

তিনি বলেন, ‘‘সুদ মেটালে ব্যাঙ্কের খাতায় অ্যাকাউন্টটি আর অনুৎপাদক সম্পদের তালিকায় থাকবে না। কিন্তু সুদ-আসল কিছুই না -মিটিয়ে, বকেয়া ঋণের সামান্য অংশ দিয়ে নিজের সংস্থার সম্পত্তি নিলামে কিনতে কেন্দ্র সায় দেবে না।’’ বিধি অনুযায়ী, সুদ মেটানোর পরে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে চোকাতে হবে আসল।

দেউলিয়া সংস্থার ঋণখেলাপি মালিকদের নিজেদের সম্পত্তি ফের নিলামে কেনা রুখতে দেউলিয়া বিধি সংশোধন করে গত মাসে অধ্যাদেশ জারি করে কেন্দ্র। এ দিন তা আইনে  বদলাতে বিল পাশ হল লোকসভায়।

কংগ্রেস নেতা গৌরব গগৈর অবশ্য অভিযোগ, বড় শিল্পপতিদের কথা মেনেই কেন্দ্র দেউলিয়া বিধি সংশোধন করেছে। জবাবে জেটলির যুক্তি, নিলামে যাতে দর ওঠে, সে জন্যই দেউলিয়া সংস্থার মালিকদেরও শর্ত বিশেষে তাতে অংশ নিতে সায় দেওয়া হচ্ছে। কারণ তাঁর দাবি, সকলেই স্বেচ্ছায় ঋণখেলাপি নন।