ভারতে শেয়ার সূচকের পতন ডেকে আনার ক্ষেত্রে বাজেটে দীর্ঘ মেয়াদি মূলধনী লাভে কর বসানোর বিরূপ প্রভাবকে ছাপিয়ে গেল বিশ্ব বাজারের পতন। এর জেরে সোমবার ফের পড়েছে সেনসেক্স এবং নিফ্‌টি।

সোমবার সেনসেক্সের পতন ৩০৯.৫৯ পয়েন্ট। নিফ্‌টির ৯৪.০৫ পয়েন্ট। বাজার বন্ধের সময়ে সেনসেক্স ৩৪,৭৫৭.১৬ এবং নিফ্‌টি ১০,৬৬৬.৫৫ অঙ্কে এসে থামে।

আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে শেয়ারের থেকে ক্রমশ তেজি হচ্ছে বন্ডের বাজার। বন্ড থেকে আয় (ইল্ড) বেড়ে যাওয়াই এর প্রধান কারণ বলে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন। এই কারণে লগ্নিকারীরা বন্ডের বাজারে ভিড় করছেন সংশ্লিষ্ট সূত্রের খবর।

হালে আমেরিকায় কর্মসংস্থান বেড়েছে, যা তাদের আর্থিক উন্নতির ইঙ্গিত দিচ্ছে। সে দেশের শেয়ার বাজার মহলের আশঙ্কা, আমেরিকার শীর্ষ ব্যাঙ্ক ফেডারেল রিজার্ভ সুদ বড়ানোর সিদ্ধান্ত কিছুটা আগেই নিতে পারে। তার বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে, এই আশঙ্কাতেই লগিকারীরা বন্ডের দিকে ঝুঁকেছেন।

এই সব কারণে বন্ডের ইল্ড আরও বাড়ার সম্ভাবনা দেখা গিয়েছে বলে মনে করছেন লগ্নিকারীরা। অনেকে তাই শেয়ার বিক্রি করে লগ্নি বাড়াচ্ছেন বন্ডে। ফলে ক্রমশ পড়ছে বিশ্ব বাজার, যার বিরূপ প্রভাব পড়েছে ভারতেও।

ভারতে কিন্তু বিদেশি লগ্নি সংস্থাগুলি টানা বিনিয়োগ করে চলেছে। বিশ্ব বাজারের পতন হতে পারে, এই আভাস পেয়েই তারা ভারতে লগ্নি বাড়িয়েছে বলে মনে করছেন অনেক বিশেষজ্ঞ। গত শুক্রবারও তারা ৯৫০ কোটি টাকার শেয়ার কিনেছে। এ দিকে বুধবার রিজার্ভ ব্যাঙ্ক নতুন ঋণনীতি ঘোষণা করবে। সুদ নিয়ে কী সিদ্ধান্ত হয়, সে দিকেই তাকিয়ে বাজার।