এই গরমে আর পারা যাচ্ছে না। মাঝে মধ্যে বৃষ্টি উঁকি মারলেও গরম কমার কোনও নাম-গন্ধই নেই। বোধ হয় কলকাতাতেই সবথেকে গরমটা বেশি। সকালে স্নান খাওয়া করে ঘর থেকে বেরোলেই ব্যাস! ঘেমে, নেয়ে একাকার। তার উপরে অফিসে কাজের চাপ তো রয়েছেই।

এই সমস্ত কিছু থেকে মন এবার মুক্তি চাইছে। আর এই গরমে রোজকার রুটিন থেকে বেরিয়ে ঘুরে আসতে পারেন দার্জিলিং, গ্যাংটক, হিমাচল, শ্রীনগর থেকে। কলকাতার এই ভ্যাপসা গরম থেকে স্বস্তি তো মিলবেই। সঙ্গে উপরি পাওনা চোখ ধাঁধানো সৌন্দর্য্য।

তবে বেড়াতে যাওয়ার আগে একটু হিসেব কষেই বেরোনো ভাল। কোথায় কতদিন কাটাবেন, কীভাবে যাবেন, কত খরচা এই সমস্ত কিছু। আর আগেভাগে এই ভ্রমণের পরিকল্পনাটা সেরে ফেললে, আখেরে আপনারই লাভ।

গরমে ঘুরতে যাওয়ার কথা উঠলে বাঙালির প্রথমেই মনে পড়ে দার্জিলিং বা গ্যাংটকের কথা। এই দু’টি জায়গা বরাবরই বাঙালির পছন্দের ঠিকানা। কলকাতা থেকে প্রথমে ট্রেনে চেপে নিউ জলপাইগুড়ি, তারপরে সেখান থেকে দার্জিলিং বা গ্যাংটক। সাশ্রয়ের কথা ভাবলে, কলকাতাবাসীর কাছে এটাই সবথেকে ভাল পথ। তবে সময়সাপেক্ষ। কলকাতা থেকে সকালের ট্রেন ধরলে নিউ জলপাইগুড়ি পৌঁছতে পৌঁছতে পরের দিন বিকেল। আবার সেখান থেকে গন্তব্যের উদ্দেশে রওনা। কিন্তু আপনি যদি ফ্লাইট ধরে বাগডোগরা চলে যান, তবে আপনার অনেকটা সময় তো বাঁচবেই, সঙ্গে আরামপ্রদ ভ্রমণ।

এবার আপনার মনে হতেই পারে যে, বিমানে গেলে পকেটের উপর চাপ পড়বে। হ্যাঁ, সেকথা ঠিক। তবে এখনই যদি আপনি এয়ার এশিয়ার ফ্লাইট বুক করেন, তবে আপনার খরচের চিন্তাটা স্রেফ কমে যাবে। কেননা এয়ার এশিয়া দিচ্ছে বিমানের টিকিটে অবিশ্বাস্য ছাড়। তাহলে আর দেরি কেন? এখনই বুক করে ফেলুন টিকিট। আর রওনা দিন আপনার গন্তব্যের উদ্দেশে।

দার্জিলিং বা গ্যাংটক যদি আপনার ঘোরা হয়ে থাকে, তবে আপনি চলে যেতে পারেন সিমলা, মানালি। এমনিতেই সিমলার আবহাওয়া সারা বছর ধরেই মনোরম থাকে। সঙ্গে সৌন্দর্য্য। কলকাতা থেকে সিমলা যেতে গেলে আপনাকে দিল্লি আসতেই হবে। সেখান থেকে চণ্ডীগড় হয়ে সিমলা। দিল্লি থেকে কালকা হয়েও সিমলা যাওয়া যায়। তবে সেটাও সময়সাপেক্ষ। আর যদি প্লেনের ভাড়া আপনার সাধ্যের মধ্যেই হয়, তবে ট্রেন কেন? আর প্লেনের জন্য এয়ার এশিয়া তো আছেই। কেননা এই সংস্থা তাদের বিমান ভাড়ায় দিচ্ছে অবিশ্বাস্য ছাড়।

এই গরমে আপনার গন্তব্য হতে পারে শ্রীনগরও। অ্যাডভেঞ্চারপ্রেমীদের জন্য তো অবশ্যই, শ্রীনগর গেলে আপনি ঘুরে আসতে পারবেন ভূস্বর্গ থেকেও। আর এখানেও রয়েছে এয়ার এশিয়ার অবিশ্বাস্য অফার।

শুধু বাগডোগরা, চণ্ডীগড় বা শ্রীনগরই নয়। কলকাতা, রাচি, হায়দরাবাদ, জয়পুর, গোয়া, ভাইজাগ, গুয়াহাটি, ইম্ফল, পুণে গেলেও আপনি পাবেন অবিশ্বাস্য ছাড়। তাহলে আর দেরি কেন? এখনই বুক করুন এয়ার এশিয়ার টিকিট। অফার কিন্ত সীমিত সময়ের জন্য।
তাহলে আপনার সঙ্গে কোথায় দেখা হচ্ছে?

টিকিট বুক করার জন্য এখানে ক্লিক করুন আর পেয়ে যান ৫০ শতাংশ ছাড়