একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটেই চলেছে বিধাননগর কমিশনারেটে। বুধবার বিমানবন্দর থানা এলাকার সুকান্তনগরে প্রথম সরণির কাছে দুর্ঘটনায় মৃত্যু হল এক মহিলার। মৃতের নাম, উজ্জ্বলা কাঞ্জিলাল (৪৭)। ঘটনার পরে উত্তেজিত জনতা পথ অবরোধ করে। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে এর জেরে বেশ কিছু ক্ষণ যানজট তৈরি হয়। বেলা বারোটার পরে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

পুলিশ জানায়, সুকান্তনগর প্রথম সরণির কাছে একটি কাট আউট রয়েছে। তার কিছুটা পরেই বাসস্টপ। রাস্তার ধারে সার্ভিস রোড থেকে একটি ইট বোঝাই মিনি ট্রাক যাচ্ছিল। ওই কাট আউট ধরে সেটি বারাসতের দিকে রাস্তায় ঢুকে পড়ে। সেই সময় বাগবাজার-বারাসত রুটের একটি বেসরকারি বাসও সেখানে এসে পড়ে। বাসের ধাক্কায় মিনি ট্রাকটি উল্টে রাস্তার ধারে গিয়ে পড়ে। সেখানেই বাস ধরার জন্য অপেক্ষা করছিলেন স্থানীয় বাসিন্দা উজ্জ্বলা। মিনি ট্রাকটি তাঁর উপরে গিয়ে পড়লে সেখান থেকে ইট ছড়িয়ে পড়ে চার দিকে। ছুটে আসেন স্থানীয়েরা। খবর পেয়ে পৌঁছয় বিধাননগর পুলিশও। স্থানীয় বাসিন্দারা দ্রুত ওই মহিলাকে বারাসতে সরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিত্সকেরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পুলিশ জানায়, ভ্যান ও বাসের চালক পলাতক। দু’টি গাড়িকেই আটক করা হয়েছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, দীর্ঘ দিন ধরেই ওই বাসস্টপের কাছে একটি সিগন্যাল ব্যবস্থা চালু করার দাবি জানানো হয়েছে। পোস্ট বসানো হলেও সিগন্যালিং ব্যবস্থা চালু হয়নি। সিভিক ভলান্টিয়ারেরা থাকলেও তাঁদের ভূমিকা নিয়ে বার বার অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ, এ দিন দুর্ঘটনার সময় কোনও সিভিক ভলান্টিয়ার ছিলেন না। বিধাননগর পুলিশের এক কর্তা অবশ্য জানান, সিগন্যাল ব্যবস্থা চালু করার কাজ চলছে। সিভিক ভলান্টিয়ার নিয়ে ওঠা অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে।