বারান্দায় প্রচণ্ড শব্দে ঘুম ভেঙে যায় পলস্টন দম্পতির। ঘুম চোখে দু’জনেই ধরে নিয়েছিলেন হয়তো চোর ঢুকেছে। ভুল ভাঙে দরজা খুলে বাইরে বেরোতেই।

বারান্দার মাঝখানে ফুঁসছে একটি ৯ ফুট লম্বা কুমীর। আরও সঠিক ভাবে বললে, আমেরিকান অ্যালিগেটর!

ইস্টার রবিবারের ভোরে দক্ষিণ ক্যারোলাইনার ঘটনা। মাউন্ট প্লেসেন্ট এলাকার একটি বাড়িতে ছেলেকে নিয়ে থাকেন সুজি ও স্টিভ পলস্টন। দম্পতি জানাচ্ছেন, রাস্তা থেকে প্রায় ১৫ ফুট উঁচু সিঁড়ি পেরিয়ে বাইরের দরজা ভেঙে ওই বারান্দায় ঢুকেছিল কুমীরটি। আসবাব উল্টে ফেলে সে। সেই শব্দেই ঘুম ভেঙে যায়। ভয়ে পলস্টনদের ঘরে ছুটে চলে আসে ১৬ বছরের ছেলেও। স্টিভ বলেন, ‘‘ভয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করে বসে ছিলাম।’’

তত ক্ষণে বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞকে খবর দেওয়া হয়েছে। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আরও বেশি আক্রমণাত্মক হয়ে উঠছিল কুমীরটি। ঘণ্টা দুয়েক ধস্তাধস্তির পরে তাকে মারতে বাধ্য হয় বন্যপ্রাণ দফতর। পরে তারাই জানায়, প্রায় ৩০০ পাউন্ড ওজনের অ্যালিগেটরের বয়স অন্তত ৬০ বছর। শীতঘুম সেরে বছরের এই সময়েই তারা খাবারের খোঁজে বেরোয়। তখন বাধা পেলে আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে।

দক্ষিণ ক্যারোলাইনায় কুমীরের হানা নতুন নয়। অভিজ্ঞতাটা ভয়ের হলেও আপাতত বাড়ি ছেড়ে তাঁরা কোথাও যাচ্ছেন না বলেই জানিয়েছেন পলস্টনরা।