আরও চড়া স্বরে যুদ্ধের প্ররোচনা দিতে শুরু করল উত্তর কোরিয়া। জাপানে বিধ্বংসী পরমাণু হামলা চালানোর হুমকি দেওয়া হল এ বার। কোরিয়া এশিয়া-প্যাসিফিক পিস কমিটির এক মুখপাত্রকে উদ্ধৃত করে উত্তর কোরিয়ার সরকারি সংবাদমাধ্যমে পরমাণু হামলার পক্ষে সওয়াল করা হয়েছে। জাপানের চারটি বৃহৎ দ্বীপকে (হোক্কাইডো, হোনশু, শিকোকু, কিউশু) পরমাণু অস্ত্রের আঘাতে এ বার সমুদ্রে ডুবিয়ে দেওয়া উচিত বলে ওই মুখপাত্র মন্তব্য করেছেন।

আরও পড়ুন: কিম-বধে যুদ্ধং দেহি সোল-ও

‘‘পরমাণু বোমা মেরে ওই দ্বীপপুঞ্জের (জাপান) চারটি দ্বীপকে সমুদ্রে ডুবিয়ে দেওয়া উচিত।’’ উত্তর কোরিয়ার মুখপাত্র এই কথাই বলেছেন। পরমাণু অস্ত্রের যে আস্ফালন উত্তর কোরিয়া দেখাচ্ছে, তার বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক মহল অত্যন্ত কঠোর প্রতিক্রিয়া দেওয়া সত্ত্বেও অবস্থানে অনড় পিয়ংইয়ং। সম্প্রতি পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরের মার্কিন দ্বীপ গুয়ামে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার হুমকি দিয়েছিল কিম জং উনের দেশ। তা নিয়ে উত্তেজনা অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলে। সেই উত্তেজনার মধ্যেই জাপানের উপর দিয়ে ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে উত্তর কোরিয়া। এর পরে জাপান তো বটেই, আমেরিকা এবং দক্ষিণ কোরিয়াও কঠোরতম সতর্কবার্তা দিয়েছে উত্তর কোরিয়াকে। কিন্তু যুদ্ধের কমে সম্ভবত থামতে নারাজ পিয়ংইয়ং। তাই বৃহস্পতিবার উত্তর কোরিয়ার সরকারি সংবাদমাধ্যমে পিয়ংইয়ং-এর উচ্চপদস্থ কর্তার মন্তব্য: ‘‘আমাদের আশপাশে জাপানের টিকে থাকার আর কোনও প্রয়োজন নেই।’’

আরও পড়ুন: ১১০০-রও বেশি গোলা ছোড়ার পরে বিস্ফোরণ কামানে, দাবি অস্ত্র নির্মাতার

এই ভয়ঙ্কর মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করেছে জাপান। পরমাণু বোমা মেরে জাপানের চারটি দ্বীপকে সমুদ্রে ডুবিয়ে দেওয়ার যে হুমকি উত্তর কোরিয়া দিয়েছে, তা অভাবনীয়। উত্তর কোরিয়ার এই আচরণকে ‘জঘন্য প্ররোচনা’ আখ্যা দিয়েছেন জাপান সরকারের শীর্ষ মুখপাত্র ইয়োশিহিদে সুগা।