২০১৬ থেকে ২০১৭— দেশে সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনা এক লাফে বেড়ে গিয়েছে ১৭ শতাংশ। ২৯ শতাংশ বেড়েছে সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনায় নিহতের সংখ্যা। লোকসভায় এক প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে এই তথ্য পেশ করল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক।

বিজেপি নেতারা প্রায়শই দাবি করেন, তাঁদের সরকার আছে এমন রাজ্যগুলিতে সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনা কম। কেন্দ্রের পেশ করা তথ্য কিন্তু একদম উল্টো কথাই বলছে। উল্লেখযোগ্য সংখ্যায় হিংসার ঘটনা ঘটেছে যে ৯টি রাজ্যে, তার মধ্যে ৭টি-তেই বিজেপি একক ভাবে বা জোট করে ক্ষমতায় রয়েছে। সবার উপরে রয়েছে যোগী আদিত্যনাথের উত্তরপ্রদেশ। আর পশ্চিমবঙ্গ সবচেয়ে বেশি ঘটনার তালিকায় রয়েছে ৬ নম্বরে।

২০১৫, ২০১৬ এবং ২০১৭— এই তিন বছরের রাজ্য ভিত্তিক তথ্য মঙ্গলবার লোকসভায় পেশ করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হংসরাজ গঙ্গারাম আহির। সেখানে দেখা যাচ্ছে, ২০১৫-তে সাম্প্রদায়িক হিংসার মোট ঘটনা ঘটেছিল ৭৫১টি, মারা গিয়েছিলেন ৯৭ জন এবং আহত হন ২,২৬৪ জন। ২০১৬ সালে মোট ঘটনা কমে হয় ৭০৩, নিহতের সংখ্যাও কমে ৮৬। তবে আহতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছিল ২,৩২১। ২০১৭ সাল সব দিক থেকে ছাপিয়ে গিয়েছে তার আগের দু’বছরকেই।

গত বছর দেশে ৮২২টি সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনা ঘটেছে। মাসে গড়ে প্রায় ৬৯টি ঘটনা। এর আগে ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে কেন্দ্র তার আগের ৫ বছরের (২ মাস কম) যে তথ্য পেশ করেছিল তাতে দেখা যাচ্ছে— জানুয়ারি ২০১১ থেকে অক্টোবর ২০১৫ পর্যন্ত দেশে প্রতি মাসে গড়ে ৫৮টি সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনা ঘটেছিল। ২০১৬-তে মাসিক গড় ৫৮-র কিছু বেশি ছিল। ২০১৭ সালে এই সংখ্যাই একলাফে ৬৯।

২০১৭ সালে সাম্প্রদায়িক হিংসায় নিহতের সংখ্যাও তার আগের বছরের তুলনায় অনেকটা বেড়ে হয়েছে ১১১। বেড়েছে জখমের সংখ্যাও। ২,৩২১ খেকে ২,৩৮৪।

আরও পড়ুন, গাঁধী-গডসের সেই ‘ফাইনাল এনকাউন্টার’ আজও চলছে

রাজ্য ভিত্তিক হিসেবে দেখা যাচ্ছে একমাত্র উত্তরপ্রদেশেই ২০০-র কাছাকাছি (১৯৫টি) সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনা ঘটেছে। এর পরেই আছে কর্নাটক। ঘটনার সংখ্যা ১০০। তার পর রাজস্থান (৯১টি), বিহার (৮৫টি), মধ্যপ্রদেশ (৬০টি), পশ্চিমবঙ্গ (৫৮টি), গুজরাত (৫০টি), ঝাড়খণ্ড (৪৯টি) এবং মহারাষ্ট্র (৪৬টি)।

নিহতের সংখ্যা সারা দেশে যেখানে ১১১, শুধু উত্তরপ্রদেশেই তা ৪৪ (প্রায় ৪০ শতাংশ)। এর পর রাজস্থান (১২টি), কর্নাটক (৯টি), মধ্যপ্রদেশ (৯টি), পশ্চিমবঙ্গ (৯টি), গুজরাত (৮টি)।

পশ্চিমবঙ্গে কিন্তু সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনা উদ্বেগজনক ভাবেই বেড়েছে গত ৩ বছরে। ২০১৫ সালে এ রাজ্যে এ ধরনের হিংসার ঘটনা ঘটেছিল ২৭টি। ২০১৬-তে বেড়ে হয় ৩২। ২০১৭-তে এক লাফে ৫৮। অর্থাত্ এক বছরে রাজ্যে সাম্প্রদায়িক হিংসা বেড়েছে ৮১ শতাংশ।

আরও পড়ুন, সংসদে রুদ্রমূর্তি মোদীর, নেহরু-গাঁধী পরিবারকে তীব্র আক্রমণ

আরও পড়ুন, ছেলের খুনের সঙ্গে ধর্ম জড়াচ্ছে কেন? ক্ষুব্ধ অঙ্কিতের বাবা

উল্টো দিকে, দেশের ১৩টি রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে একটিও সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনা নেই। এই রাজ্যগুলি হল— অরুণাচল প্রদেশ, চণ্ডীগড়, ছত্তীসগঢ়, গোয়া, দমন-দিউ, দাদরা-নগর হাভেলি, লক্ষদ্বীপ, মণিপুর, মেঘালয়, মিজোরাম, নাগাল্যান্ড, সিকিম এবং পুদুচেরি। 

খুব কম সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনা ঘটেছে যে সব রাজ্যে সেগুলির মধ্যে আছে পঞ্জাব, ত্রিপুরা, অন্ধ্রপ্রদেশ, হিমাচল প্রদেশ, দিল্লি, ওডিশা।

গ্রাফিক্স: শৌভিক দেবনাথ।