দীপাবলির আগে দেশের সব কেন্দ্রীয় এবং রাজ্যের অধীন বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজের শিক্ষকদের উপহার দিল নরেন্দ্র মোদী সরকার। আজ কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে সপ্তম বেতন কমিশনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজের শিক্ষকদের বেতনবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নেয়। এই সিদ্ধান্তে উপকৃত হবেন দেশের প্রায় সাড়ে সাত লক্ষ শিক্ষক। সরকারি কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের অশিক্ষক কর্মচারীদের বেতনবৃদ্ধির বিষয়টিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে এ দিন আশ্বাস দিয়েছেন কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর।

জাভড়েকরের কথায়, ‘‘১০ হাজার  ৪০০ টাকা থেকে ৪৯ হাজার ৮০০ টাকা পর্যন্ত বেতন বাড়তে চলেছে শিক্ষকদের।’’ মন্ত্রক জানিয়েছে, সদ্য চাকরিতে যোগ দিয়েছেন, এমন শিক্ষকের বেতন ৪৭ হাজার থেকে বেড়ে ৫৭ হাজার টাকা হতে চলেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের ন্যূনতম বেতন ১.৭৫ লক্ষ থেকে বেড়ে দাঁড়াবে ২.২৫ লক্ষ টাকা। মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক সূত্রের খবর, বাড়তি বেতন দিতে কেন্দ্রের বছরে বাড়তি প্রায় ৯ হাজার ৮০০ কোটি টাকা খরচ হবে। এর মধ্যে কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলির জন্য বছরে ১ হাজার ৪০০ কোটি টাকা ও রাজ্যের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির খাতে ৮ হাজার ৪০০ কোটি টাকা খরচ বাড়বে কেন্দ্রের। বর্ধিত বেতন কার্যকর হবে ২০১৬ সালের ১ জানুয়ারি থেকে।

কেন এই সিদ্ধান্ত? মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের বক্তব্য, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের আকর্ষণীয় ‘প্যাকেজ’-র কারণে বহু শিক্ষক সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছেড়ে চলে যাচ্ছিলেন বলে সমীক্ষায় উঠে এসেছিল। তাই বেসরকারি ও সরকারি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বেতনের ফারাক ঘুচিয়ে শিক্ষকদের ধরে রাখার লক্ষ্যেই বেতনবৃদ্ধির এই সিদ্ধান্ত।

কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মচারীদের ক্ষেত্রে সপ্তম বেতন কমিশন সুপারিশ কার্যকর হওয়ার পর থেকেই নিজেদের বেতনবৃদ্ধির জন্য কেন্দ্রের কাছে দরবার করে আসছিলেন কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা। তাঁদের দীর্ঘদিনের সেই দাবি আজ মেনে নিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। পরে তিনি জানান, এর ফলে কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়, আইআইটি, আইআইএম, এনআইআইটি, আইআইএসটি-র মতো ২২৫টি কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকেরা সরাসরি উপকৃত হবেন। পাশাপাশি বেতন বাড়ল ৩২৯টি রাজ্য বিশ্ববিদ্যালয় ও গোটা দেশের প্রায় ১৩ হাজার কলেজের প্রায় ৭ লক্ষ শিক্ষকেরও।

রাজ্য সরকারের অধীনে থাকা কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতনের বাড়তি টাকা জোগানোর প্রশ্নে জাভড়েকর বলেন, ‘‘এত দিন কেন্দ্র যে সমীকরণ মেনে রাজ্যকে অর্থ দিয়ে এসেছে, বেতনবৃদ্ধির পরে বাড়তি অর্থ দেওয়ার ক্ষেত্রেও সেটাই মেনে চলা হবে।’’