ভয়াবহ ধসে হিমাচল প্রদেশে অন্তত ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজ বহু যাত্রী। যদিও রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী জি এস বালি আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন মৃতের সংখ্যা ৫০ ছাড়িয়ে যেতে পারে। গত কাল রাতে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে হিমাচল প্রদেশের মান্ডি জেলায়। 

আজ, রবিবার, মান্ডির ডেপুটি কমিশনার সন্দীপ কাদাম জানিয়েছেন, দুটি বাসই হিমাচল রোড ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশনের। একটি চাম্বা থেকে মান্ডি যাচ্ছিল, অন্যটি জম্মুর কাটরা থেকে আসছিল মানালির দিকে। শুক্রবার গভীর রাতে মানালি এবং মান্ডি-র সংযোগস্থলে জাতীয় স়ড়কে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে বাস দুটি। 

পরিবহণ দফতর সূত্রে খবর, প্রথম বাসটিতে ৪৭ জন যাত্রী ছিলেন। অন্যদিকে, দ্বিতীয়টিতে যাত্রী ছিলেন ৮-১০ জন। দুটি বাসই ধসের মুখে পড়ে প্রায় ৮০০ মিটার উপর থেকে নিচে পড়ে যায় বলে পুলিশ সূত্রে খবর।

আরও পড়ুন:অন্তর্ঘাতের তত্ত্ব যোগীর শিবিরে

আরও পড়ুন: উত্তরপ্রদেশে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা দুই বোনকে

দুর্ঘটনার পরই দ্রুততার সঙ্গে শুরু হয় উদ্ধার কাজ। যদিও, গত কয়েকদিন ধরে চলা প্রবল বৃষ্টির কারণে উদ্ধার কাজ ব্যাহত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মান্ডির ডেপুটি কমিশনার। রাজ্যের মন্ত্রী জি এস বালি জানিয়েছেন,  উদ্ধার কাজে হাত লাগিয়েছে সেনা ও এনডিআরএফ। ধ্বংসস্তুপের তলায় বহু মানুষ চাপা পড়ে রয়েছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

 

হিমাচল রোড ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশনের তরফে জানানো হয়েছে, যখন তখন ধস আর বোল্ডার ছিটকে পড়ার জেরে হিমাচলের রাস্তায় যাতায়াত ক্রমশ দুরূহ হয়ে উঠেছে। বিশেষ করে পান্ডোহ- আওত এলাকায় চণ্ডীগড়-মানালি জাতীয় সড়ক ও যোগিন্দরনগর-মান্ডি এলাকায় পঠানকোট-মান্ডি জাতীয় সড়ক প্রবল বৃষ্টির জন্য যাতায়াতের অযোগ্য হয়ে উঠেছে। পারওয়ানু-সোলানের মাঝে চণ্ডীগড়-সিমলা জাতীয় সড়কেরও একই অবস্থা।