প্রত্যাশিত টিকিট না পেয়ে বিজেপি ছেড়ে ফের কংগ্রেসে ফিরলেন মানস চৌধুরী। আর ফিরেই বাঙালি-প্রধান দক্ষিণ শিলঙের টিকিট পেলেন এই প্রাক্তন কংগ্রেসি বিধায়ক তথা মন্ত্রী।

লাবান কেন্দ্র ভাগাভাগি হওয়ার ধাক্কায় ও স্থানীয় বাঙালিদের ভোট ভাগের ফলে কংগ্রেসের প্রাক্তন মন্ত্রী মানসবাবু ২০১৩ সালে এনসিপির প্রদেশ সভাপতি সানবর সুলাইয়ের কাছে হেরে যান। বাঙালিদের মন পেতে সুলাই বড় করে দুর্গাপুজোও শুরু করেন। অন্য দিকে, কংগ্রেসে কোণঠাসা হতে থাকা মানসবাবুও গত বছর বিজেপিতে যোগ দেন। তিনি জানান, গত বছর জুন মাস থেকেই দক্ষিণ শিলংয়ে তাঁকে প্রার্থী করবে বলে জানিয়েছিল বিজেপি নেতৃত্ব। কিন্তু বর্তমান বিধায়ক সানবরকে দলে টানার পরেই মানসবাবুকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি ভুলে যান তাঁরা। তিনি বলেন, ‘‘ওঁদের কথার দাম নেই। তাই সোমবার আমার পদত্যাগপত্র প্রদেশ বিজেপি সভাপতির কাছে পাঠিয়ে দিয়ে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছি। কংগ্রেস আমায় প্রার্থীও করেছে।’’ পাশাপাশি, দক্ষিণ শিলংয়ে লড়ার মতো কোনও প্রার্থী কংগ্রেসের হাতে ছিল না। তাই অভিমানে দলত্যাগ করা পুরনো সদস্য মানসবাবুকে ফের কংগ্রেসের হয়ে লড়ার আহ্বান জানান কংগ্রেস সাংসদ তথা দলের কার্যনির্বাহী সভাপতি ভিনসেন্ট পালা।

অন্য দিকে, প্রার্থীর টিকিট না মেলায় বিজেপি ছাড়ার হিড়িক চলছেই। রবিবার দল ছেড়েছেন বিজেপির মহিলা মোর্চার সহ-সভাপতি মরমি এম মারাক। উইলিয়ামনগরের টিকিট না পেয়ে প্রচুর সমর্থক-সহ দল ছাড়েন আইনজীবি জান এন আরেং। প্রদেশ সভাপতি সিবুন লিংডোর বোন ভায়োলেট লিংডোও টিকিট না পাওয়ার রাগে ইস্তফা দিয়ে এনপিপিতে যোগ দিয়েছেন।