অয়েল অ্যান্ড ন্যাচারাল গ্যাস কমিশন (ওএনজিসি)-এর পাঁচ কর্মী ও দুই পাইলটকে নিয়ে মুম্বই উপকূলের অদূরে ভেঙে পড়ল একটি পবন হংস হেলিকপ্টার। শনিবার সকালের ঘটনা। 

এই ঘটনায় মৃত্যু হয় ওএনজিসি-র এক অফিসার-সহ চার জনের। উপকূলরক্ষী বাহিনী জানিয়েছে, মৃত ওই অফিসারের নাম পঙ্কজ গর্গ। ভারতীয় নৌবাহিনী এবং  উপকূলরক্ষী বাহিনীর তরফে জানানো হয়েছে, শনিবার রাত অবধি পাঁচ জনের দেহ উদ্ধার করা গিয়েছে।

এ দিন সকাল সওয়া ১০টা নাগাদ জুহু থেকে ওএনজিসির পাঁচ কর্মী ও দুই পাইলটকে নিয়ে মুম্বই হাই নর্থ ফিল্ডের উদ্দেশে রওনা হয়েছিল সাত বছরের পুরনো ভিটিপিডব্লিউএ ডফিন এএস ৩৬৫ এন ৩ হেলিকপ্টারটি। কিন্তু জুহু থেকে ওড়ার মিনিট পনেরোর মধ্যেই এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের সঙ্গে  হেলিকপ্টারটির যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

আরও পড়ুন: পোঙ্গল: ধোঁয়ায় ঢাকলো চেন্নাই, বিপর্যস্ত বিমান পরিষেবা

চিদম্বরমদের বাড়িতে ফের ইডি হানা

হেলিকপ্টারের নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার ঘটনা সামনে আসতেই উদ্ধারকাজে নামে উপকূলরক্ষী বাহিনীর জাহাজ আইএনএস তেগ ও পি৮আই বিমান। ভেঙে পড়ার ঘণ্টা চারেক পরেই মুম্বই উপকূলের অদূরেই উপকূলরক্ষীবাহিনী হেলকপ্টারটির ধ্বংসাবশেষ উদ্ধার করে।

ডিজিসিএ-র তরফে জানানো হয়েছে, কোনও নাশকতা নয়, এটা দুর্ঘটনাই। ফলে এয়ারক্র্যাফ্ট অ্যাক্সিডেন্ট ইনভেস্টিগেশন ব্যুরো-ই ঘটনাটির তদন্ত করবে। তিন জনের দেহ এখনও খুঁজে পাওয়া যায়নি। সকলের দেহ খুঁজে পাওয়া এবং শনাক্ত হওয়া অবধি মৃতদের নাম ঘোষণা করছে না ওএনজিসি। তবে পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান এ দিন সন্ধ্যায় শোকার্ত পরিবারগুলির সঙ্গে দেখা করেন। এর আগে ২০০৩ সালের অগস্ট মাসে একটি এমআই-১৭২ হেলিকপ্টার মুম্বই উপকূলে ভেঙে পড়েছিল। সে বার পাইলট এবং ওএনজিসি কর্মী মিলিয়ে মোট ২৭ জন মারা গিয়েছিলেন।

গ্রাফিক্স: শৌভিক দেবনাথ