বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের ছেলে জয়ের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ নিয়ে মুখ খুললেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী যশবন্ত সিন্‌হা। আজ পটনায় বিজেপির এই প্রবীণ নেতা বলেন, ‘‘বিজেপি দুর্নীতি বরদাস্ত না করার কথা বলে। তবে এই ঘটনায় নীতির প্রশ্নে বড় ধাক্কা খেয়েছে দল।’’ যশবন্ত জানান, এই অভিযোগের সঙ্গে নরেন্দ্র মোদী সরকারের অনেক বিভাগের নাম জড়িয়ে গিয়েছে। তাই কেন্দ্রের উচিত তদন্তের নির্দেশ দেওয়া।

জয়প্রকাশ নারায়ণের জন্মদিন উপলক্ষে পটনার কদমকুঁয়া এলাকায় সমাজবাদী নেতার বাসভবনে হাজির ছিলেন যশবন্ত। এ দিন অমিত শাহের উপর চাপ বাড়ালেও সরাসরি বিজেপি সভাপতির পদত্যাগ দাবি করেননি তিনি। তবে মন্তব্য করেছেন, ‘‘লালকৃষ্ণ আডবাণীর বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠার পরে তিনি নিজের ইচ্ছায় পদ ছেড়েছিলেন।’’ দলের সর্বোচ্চ নেতার নৈতিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে যশবন্ত বলেন, ‘‘জয় শাহের ব্যবসায়িক শ্রীবৃদ্ধি নিয়ে যে অভিযোগ উঠেছে, তার মোকাবিলায় বিজেপি একের পর এক ভুল করেছে।’’

প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘‘জয় শাহকে যে ভাবে শক্তি মন্ত্রক ঋণ দিয়েছে এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযুষ গয়াল বিজেপি সভাপতির ছেলেকে যে ভাবে আড়াল করেছেন, তা থেকে একটা ধারনা তৈরি হয়েছে যে কোথাও একটা বেনিয়ম ঘটেছে।’’

অমিত শাহের ছেলেকে বাঁচাতে মন্ত্রীদের নামানো, জয়ের হয়ে সরকারি আইনজীবী তুষার মেটাকে কোর্টে সওয়াল করার অনুমতি দেওয়া— বিজেপির পক্ষে ভুল হয়েছে বলেই মনে করেন যশবন্ত। বলেন, ‘‘অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল তুষার মেটা আদালতে সরকারের বাইরের কোনও ব্যক্তির হয়ে প্রতিনিধিত্ব করছেন, এমন ঘটনা আগে কোনও দিন ঘটেনি।’’