বিমল গুরুঙ্গ দেখা দেওয়ার তিন দিনের মাথায় মুখ খুললেন জিটিএ-র কেয়ারটেকার চেয়ারম্যান বিনয় তামাঙ্গ। তবে গুরুঙ্গ প্রসঙ্গে কোনও মন্তব্য করেননি তিনি। বরং, পাহাড়ে বিনিয়োগ টেনে উন্নয়ন ও কর্মসংস্থানে গতি বাড়ানোই যে তাঁর অন্যতম লক্ষ্য, সেটাই বোঝাতে চেয়েছেন। এক বিবৃতিতে বিনয় লিখেছেন, আগামী ১৮ জানুয়ারি কলকাতায় বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনে আমন্ত্রণ পেয়েছেন তিনি। সেখানে যোগ দিয়ে পাহাড়ে বিনিয়োগের জন্য শিল্পোদ্যোগীদের কাছে আর্জি জানাবেন। তাঁর দাবি, ‘‘আগে কোনও দিন পাহাড় থেকে কেউ শিল্প সম্মেলনে গিয়ে বিনিয়োগের জন্য শিল্পদ্যোগীদের ডাকেননি। সে জন্যই আমি যাব। আশা করি পাহাড়ে লগ্নির ডাকে সাড়া মিলবে।’’

ওই অনুষ্ঠান করছে রাজ্য সরকার। সরকারি সূত্রের খবর, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আমন্ত্রণেই সাড়া দিয়েছেন বিনয়। সব ঠিক থাকলে তাঁর সঙ্গে জিটিএ-র ভাইস চেয়ারম্যান অনীত থাপাও যেতে পারেন।

ঘটনাচক্রে, এ দিন রোশন গিরি তাঁর হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে অনীতের বৃহস্পতিবারের বিবৃতির সমালোচনা করেছেন। সেখানে মোর্চার যুব সভাপতি সঞ্জীব লামার নামে দেওয়া বিবৃতি ‘পোস্ট’ করেছেন রোশন। তাতে লেখা হয়েছে, ‘দিল্লিতে থাকায় বিমল গুরুঙ্গ যদি বিজেপি হয়ে গিয়ে থাকেন, তা হলে বিনয়-অনীত তো তৃণমূল হয়ে গিয়েছেন!’ যদিও বিনয়-অনীতরা এই নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে নারাজ। অনীতের তরফে কয়েক জন মোর্চা নেতা জানান, পাহাড়ে কারা শান্তি ফিরিয়েছেন আর কারা আন্দোলনের নামে জনজীবন স্তব্ধ করে অশান্তি জিইয়ে রাখার চেষ্টা চালাচ্ছেন, সেটা পাহাড়বাসীরা সকলেই জানেন।