বেসরকারি লগ্নি সংস্থা রোজ ভ্যালিকে আমানতকারীদের টাকা ফেরত দিতে হবে ঠিকই। কিন্তু কী ভাবে সেই টাকা ফেরত দেওয়া হবে, তা নিয়ে ‘অ্যাসেট ডিসপোজাল কমিটি’র বৈঠকের খরচ রোজ ভ্যালি মেটাবে কেন, প্রশ্ন তুলল কলকাতা হাইকোর্ট।

অভিযোগ উঠেছে, ওই কমিটির নিয়মিত বৈঠকের জায়গার ভাড়া-সহ যাবতীয় খরচ মেটাচ্ছে অভিযুক্ত সংস্থাই। হাইকোর্টের নির্দেশ, কমিটির খরচ বহন করতে হবে রাজ্য সরকারকেই। এই বিষয়ে সরকারের বক্তব্য কী, ১২ ফেব্রুয়ারি তা জানাতে হবে বলে বৃহস্পতিবার রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেলকে (এজি) নির্দেশ দিয়েছে উচ্চ আদালত।

বিভিন্ন বেসরকারি লগ্নি সংস্থার আমানতকারীদের টাকা ফেরাতে বিচারপতি অনিরুদ্ধ বসু ও বিচারপতি জয়মাল্য বাগচীকে নিয়ে যে-ডিভিশন বেঞ্চ গড়া হয়েছে, তারাই এই নির্দেশ দিয়েছে। এ দিন রোজ ভ্যালির আমানতকারীদের কৌঁসুলি সর্দার আমজাদ আলি জানান, তাঁর মক্কেলদের টাকা ফেরাতে হাইকোর্ট ‘অ্যাসেট ডিসপোজাল কমিটি’ গড়ে দিয়েছে। সেই কমিটি কবে, কখন, কোথায় বৈঠক করছে, হাইকোর্টের নির্দেশ সত্ত্বেও তা আমানতকারীদের জানানো হচ্ছে না। ওই কৌঁসুলিই অভিযোগ করেন, কমিটির যাবতীয় খরচ মেটাচ্ছে রোজ ভ্যালি। তখনই খচ নিয়ে প্রশ্ন তোলে ডিভিশন বেঞ্চ। কমিটির পক্ষে কৌঁসুলি শুভদীপ সেন জানান, কলকাতায় বেসরকারি একটি হোটেলে বৈঠক হয়। কমিটির তহবিলে এখনও পর্যন্ত পাঁচ লক্ষ টাকা জমা দিয়েছে ওই লগ্নি সংস্থা।

ডিভিশন বেঞ্চ জানায়, বিভিন্ন লগ্নি সংস্থার আমানতকারীদের টাকা ফেরাতে অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শৈলেন্দ্রপ্রসাদ তালুকদারের নেতৃত্বে গড়া কমিটির ক্ষমতা বাড়ানোর কথা ভাবা হচ্ছে। কমিটির ক্ষমতা বাড়ানোর আবেদন জানান আমানতকারীদের কৌঁসুলি শুভাশিস চক্রবর্তী ও অরিন্দম দাসেরা। ডিভিশন বেঞ্চ এ দিন সিকিওরিটি এক্সচেঞ্জ বোর্ড, এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট, কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের কৌঁসুলিদের নির্দেশ দিয়েছে, ক্ষমতা বৃদ্ধি নিয়ে সব পক্ষের বক্তব্য জেনে ১৩ ফেব্রুয়ারি তা আদালতে জানাতে হবে।