আজ ২১ মার্চ, রানি মুখোপাধ্যায়ের জন্মদিন। জন্মদিন মানেই বিশেষ একটা দিন, কিন্তু রানির কাছে এবারের জন্মদিন একটু যেন বেশিই স্পেশ্যাল! কেন? ২০১৪, প্রদীপ সরকারে ‘মর্দানি’-র পর অভিনয়ের প্রথম ইনিংস শেষ করেছিলেন রানি। ছবি রিলিজের কয়েক মাস আগেই আদিত্য চোপড়ার সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে মা হয়েছেন তিনি। এখন তাঁর ধ্যানজ্ঞান মেয়ে আদিরা। দু’-আড়াই বছর বিরতির পর রানি আবার অভিনয়ে ফিরছেন সিদ্ধার্থ পি মলহোত্রর ছবি ‘হিচকি’ দিয়ে। যার শ্যুটিং শুরু হবে সামনের মাসে। তবে তাঁর নায়িকাসুলভ চেহারায় বদল এসেছে। এসব দেখে ভাববেন না, তিনি সব ভুলে গৃহবধূ হয়ে গিয়েছেন! শোনা যায়, যশ রাজ ফিল্মসের যাবতীয় কাজে তাঁর কড়া নজর। ছবি, ছবির কলাকুশলী মিসেস চোপড়া জুনিয়ারের ইশারাতেই ঠিক হয়। ‘বেফিকরে’র শ্যুটিংয়ের সময় আদিত্য চোপড়া ও গোটা ইউনিটের সঙ্গে ছোট্ট আদিরাকে নিয়ে তিনি পৌঁছে গিয়েছিলেন প্যারিসে। নিন্দুকেরা বলেন, গিন্নিমার নাকি ভারী দাপট! শুধু আদিরা নয়, স্বামী মানুষটিকেও তিনি বেশ নজরে-নজরে রাখেন! তাঁর এই অভ্যেস নাকি শ্বশুরবাড়িতে ঢোকার আগের থেকেই! কথায় আছে, যা রটে তা কিছুটা তো বটেই! এক অ্যাওয়ার্ড ফাংশনে এই প্রবাদের প্রমাণ দিয়েছিলেন শত্রুঘ্ন সিংহ, রানিকে ‘রানি চোপড়া’ নামে ডেকে ফেলেছিলেন! 

আরও পড়ুন: স্বাভাবিক হোক তৈমুর

তাই হয়তো ঘরের ব্যানারের ছবি দিয়ে তাঁর ফিরে আসার শুরুটাও হল নাটকীয়ভাবেই। যে রানি সোশ্যাল মিডিয়া থেকে বরাবরই দূরে থাকতেন, তিনিই কামব্যাকের ফিতে কাটতে বেছে নিলেন সেই মাধ্যমকেই। ভক্তদের পাঠানো চিঠি, ফুল, কার্ড তাঁকে খুব আবেগপ্রবণ করে তোলে। তাই তিনি সরাসরি তাঁদের সঙ্গে কথা বলতে ‘ফেসবুক লাইভ’ বেছে নিয়েছেন। স্বাভাবিকভাবেই সেখানে ‘তাঁর সোশ্যাল মিডিয়ায় না থাকার কারণ’ নিয়ে প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছেন। উত্তরে রানি জানিয়েছেন, তাঁর ভালই লাগে স্যোশ্যাল মিডিয়ায় থাকতে, মেয়ে আদিরার ছবি পোস্ট করতে। কিন্তু তাঁর স্বামী সাংঘাতিক প্রাইভেট পার্সন। তাঁর ভারী না পসন্দ এই সব। তিনিও স্বামীর পথগামী। জন্মদিনের শুভেচ্ছা, আদিরা, মা হওয়ার সুখানুভূতি, অভিনয়ের টিপস নিয়ে কথা, ভক্তদের প্রতি উড়ন্ত চুমুর ফাঁকে তিনি বারবার ‘হিচকি’-র প্রসঙ্গে চলে যাচ্ছিলেন। ঘরের নতুন ছবির প্রচারের এই অভিনব বুদ্ধিটিও কি তবে রানির? শোনা যাচ্ছে, পরিচালক সিদ্ধার্থর সঙ্গে প্রথমে কথা হয়েছিল ইমরান হাশমির। ইমরান সরে আসলে কথা হয় অভিষেক বচ্চনের সঙ্গে। সেও নাকচ হয়। পাশে পান মণীশ শর্মা ও যশ রাজ ফিল্মসকে। তার জন্য মুখ্য চরিত্রকে অবশ্য পুরুষ থেকে নারী হতে হয়! 

রানি জানিয়েছেন, আজকের দিনটি তিনি অভিভাবক, স্বামী ও মেয়ের সঙ্গে কাটাবেন। রানির বার্থ ডে পার্টি সম্পর্কে জানতে চাইলে মুম্বই থেকে ফোনে রানির মা কৃষ্ণা মুখোপাধ্যায় এই প্রতিবেদককে বললেন, ‘‘এখন ওর স্বামীই সব আয়োজন করে। এখনও জানি না ওরা কী করবে, তবে নিমন্ত্রণ তো থাকবেই।’’ শোনা যায়, রানি নাকি মেয়ের সব কাজ নিজে হাতে করেন? ‘‘কিছু করতে হয় না, চারজন পরিচারিকা আছে, কাজ করতে হবে কেন! ও সব সময় মেয়ের সঙ্গে থাকে। রোজ তো আমার কাছে আসে। অনেকটা সময় থাকে।’’ তা হলে ‘হিচকি’র শ্যুটিংয়ের সময় আদিরা... প্রশ্ন শেষ হওয়ার আগেই পাক্কা দিদিমার মতো তিনি বললেন, ‘‘কেন আমি তো আছি ওকে দেখার জন্য।’’ বোঝাই যাচ্ছে দাপুটে গিন্নির কাছে মায়ের বাড়ি এখনও বিরাট ভরসার। শোনা যায়, নিজের অভিভাবকের প্রতি তিনি ভীষণই দুর্বল। তাঁদের কিছু হলে, তিনি মোটেও রেয়াত করবেন না কাউকে। জন্মদিনে আনন্দপ্লাস-এর পক্ষ থেকে রানির জন্য রইল অনেক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।