বিশাল সভা হলেও গোর্খাল্যান্ডের দাবি ছিল না। বদলে শহিদদের শ্রদ্ধাজ্ঞাপন ও পুজো-পাঠ৷ সেইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশংসা৷

৮ ফেব্রুয়ারির এই দিনটাতে প্রতিবছরই মোর্চাকে বলিদান দিবস পালন করতে দেখছে নাগরাকাটার শিপচু৷ কিন্তু এ বারই প্রথম সেখানে পরিবর্তন দেখলেন শিপচুর মানুষ৷

বলিদান দিবসে কর্মসূচিতে এ বার যে পরিবর্তন আসতে চলেছে, বুধবার বিনয় তামাঙ্গের কথাতেই তার স্পষ্ট ইঙ্গিত মিলেছিল৷ মোর্চা সভাপতি সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন, বলিদান দিবসে সভা করে বিমল গুরুঙ্গের মতো এ বার রাজনীতি করবেন না তাঁরা৷ বরং এই দিনে শুধুমাত্র শহিদদের শ্রদ্ধা জানাবেন৷ ২০১১ সালে পৃথক গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে পাহাড় থেকে ডুয়ার্স পর্যন্ত পদযাত্রার কর্মসূচি নিয়েছিল মোর্চা৷ সেই সময় নাগরাকাটার শিপচুতে পুলিশের সঙ্গে ঝামেলায় জড়ান মোর্চা সমর্থকদের একাংশ৷ ৮ ফেব্রুয়ারি পুলিশের গুলিতে মারা যান তিন মোর্চা সমর্থক৷ তাঁদের স্মৃতিতে এই দিনটি বলিদান দিবস পালন করে মোর্চা নেতৃত্ব৷

বিমল গুরুঙ্গের আমলে প্রতিবার যে সভা থেকে বিমল গুরুঙ্গকে গোর্খাল্যান্ড আদায়ের হুঙ্কার দিতে শুনতেন স্থানীয় বাসিন্দারা, গুরুঙ্গ জমানার ‘পতন’-এর পর এ বারই প্রথম মোর্চার অন্যরকম বলিদান দিবস দেখল শিপচু৷ পাহাড়ে মুখ্যমন্ত্রী থাকায় এ দিন শিপচুতে আসতে পারেননি বিনয় তামাঙ্গ বা অনিত থাপারাও৷  তবে তারা না এলেও কালিম্পঙের জিটিএ সদস্য সঞ্জু বীর সুব্বা ও মোর্চার উপদেষ্টা এল এম লামা কর্মসূচিতে এসেছিলেন৷ এসেছিলেন পাহাড়ের আরও কয়েকজন নেতা৷

সূত্রের খবর, শিপচু সহ আশপাশের এলাকায় এখনও কিছু গুরুঙ্গ সমর্থক রয়েছেন৷ তাঁদের সঙ্গে তামাঙ্গপন্থীদের ঝামেলার আশঙ্কায় সেখানে প্রচুর পুলিশ মোতায়েন হয়৷ শেষ পর্যন্ত গুরুঙ্গ ঘনিষ্ঠ তেমন কাউকে এলাকায় দেখা যায়নি৷ পাশাপাশি ডুয়ার্স এলাকার খুব বেশি মোর্চা সমর্থককেও বলিদান দিবসের কর্মসূচিতে যোগ দিতে দেখা যায়নি৷