ভারতে কোনও ম্যাচ আয়োজনে কোনও সমস্যা নেই। লোঢা কমিটির মাধ্যে এই বার্তা দিয়ে দিল সুপ্রিম কোর্ট। এ ছাড়াও লোঢা প্যানেল জানিয়েছে, বিসিসিআই সিইও রাহুল জোহুরিকে যেন সব রাজ্য সংস্থা সেই সংক্রান্ত সব তথ্য দেয় যাতে কোনও ম্যাচ করতে সমস্যা না হয়। এরকম একটা পদক্ষেপ দ্রুত নেওয়ার কারণ অবশ্য অন্য। বিসিসিআই-এর বহিষ্কৃত কর্তারা নানা ভাবে ম্যাচে বাঁধা দেওয়ার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। বর্তমান কর্তাদের সমস্যায় ফেলার চেষ্টা চলছে। বুধবার নয়া দিল্লিতে তিন সদস্যের কমিটি এই সিদ্ধান্ত নেয়। যদিও হায়দরাবাদ ও রাজস্থান ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের বিষয়ে এই কমিটি কোনও মন্তব্য করেনি। তবে এটা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে কোনও কারণের জন্যই দেশের মাটিতে খেলা বন্ধ হবে না।

style="text-align: center;">আরও খবর: ধোনি নেই তাই সুযোগ পেয়েছে যুবরাজ: যোগরাজ

অতীতে সুপ্রিম কোর্ট বিসিসিআই-এর ফান্ড রাজ্য সংস্থাগুলোকে দেওয়ার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি করলে বেঁকে বসেছিলেন তৎকালীন সভাপতি অনুরাগ ঠাকুর। ম্যাচ বাতিলের ইঙ্গিতও দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কোনও ম্যাচই বাতিল হয়নি সুপ্রিম কোর্টের হস্তক্ষেপে। ম্যাচ করার জন্য যতটা প্রয়োজন টাকা বরাদ্দ করায় ছাড় দেওয়া হয়েছিল বিসিসিআইকে। এ বারও একটা রটনা শোনা গিয়েছিল হায়দরাবাদ ক্রিকেট বোর্ড নাকি বাংলাদেশের বিরুদ্ধে টেস্ট আয়োজন করতে নারাজ। কিন্তু পরে সেটা উড়িয়ে দেন অ্যাসোসিয়েশনের সচিব। ১৫ জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে ভারত-ইংল্যান্ড ওয়ান ডে সিরিজ। তার আগে বুধবার সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে রাজ্য সংস্থাগুলোকে বার্তা দিয়ে রাখল লোঢা কমিটি।