প্রতি দিন প্রধান খাবার হিসেবে আমরা বাঙালিরা ভাত খেতেই অভ্যস্ত। পুষ্টিগুণ, ডায়েট— সব কিছুর উর্দ্ধে ভাত ভারতীয়দের কাছে তাই কমফর্ট ফুড। কিন্তু ভাত যতই স্বাস্থ্যকর হোক না কেন, ভাত রান্নার পদ্ধতির কারণে তা আমাদের কাছে হয়ে ওঠে বিষাক্ত।

২০১৪ সাল থেকে চালে আর্সেনিকের পরিমাণ নিয়ে গবেষণা শুরু করে চলেছেন আয়ারল্যান্ডের বেলফাস্টের কুইন’স বিশ্ববিবিদ্যালয়ের গবেষকরা। তাঁরা জানাচ্ছেন, যে ভাবে আমরা ভাত রান্না করে থাকি তা আমাদের শরীরের জন্য বিষাক্ত। গবেষক অ্যান্ডি মেহার্গ বলেন, সাধারণ ভাবে আমরা ভাত রান্না করার সময় জল পুরো শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত রান্না করি। এর ফলে চালে থাকা আর্সেনিক পুরো মাত্রায় বজায় থাকে।

সারা রাত চাল ভিজিয়ে রাখুন। এর ফলে চালে আর্সেনিকের মাত্রা কমবে।

আরও পড়ুন: রান্নাঘরেই বিশুদ্ধ আর ভেজালের ফারাক বুঝতে পারবেন এই ভাবে

সকালে চালের জল ঝরিয়ে আরও এক বার টাটকা ঠান্ডা জলে ভাল করে ধুয়ে নিন।

এক কাপ চালে অন্তত ৫ কাপ জল দিন এবং ভাল করে ফুটিয়ে ভাত রান্না করে নিন। বেশি করে জল দেবেন যাতে কখনই ভাতের জল শুকিয়ে না যায়।

আরও পড়ুন: কেন খাবেন আমলকির রস

ভাতের ফ্যান ঝরিয়ে আরও এক বার ভাল করে আরও এক বার গরম জলে ভাল করে ধুয়ে নিন।

‘এই ধরনের খবর আপনার ইনবক্সে সরাসরি পেতে এখানে ক্লিক করুন’

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, সময় কিছুটা বেশি লাগলেও এই ভাবে রান্না করা ভাত খেলে শরীরে অনেক কম মাত্রায় আর্সেনিক প্রবেশ করবে।