মাঝ আকাশে হঠাৎই প্রসব বেদনা শুরু হয়েছিল তাঁর। এগিয়ে এলেন বিমানকর্মী থেকে সাধারণ যাত্রী, সকলেই। সকলের চেষ্টায় মাঝ আকাশেই ভুমিষ্ঠ হল শিশু। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৩৫ হাজার ফুট উপরে। আর বিমানে জন্ম হওয়ার সুবাদে সারা জীবনের জন্য জেট এয়ারওয়েজ-এর ফ্রি টিকিট বগলদাবা করল ওই খুদে।

রবিবার দুপুর তিনটে নাগাদ সৌদি আরবের দামাম থেকে কোচির উদ্দেশে রওনা দিয়েছিল জেট এয়ারওয়েজ-এর বোয়িং ৯ ডব্লুউ ৫৬৯ বিমানটি। আরব সাগরের উপর দিয়ে আসার সময় হঠাৎই মাঝ আকাশে প্রি-ম্যাচিয়র লেবার পেন শুরু হয় ওই মহিলার। তৎক্ষণাৎ বিমানের ক্রু মেম্বাররা খবরটি মাইকে ঘোষণা করেন। সেই সময় সফররত যাত্রীদের মধ্যে একজন নার্স ছিলেন। ওই মহিলাকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসেন তিনি। বিমানকর্মী ও সাধারণ যাত্রীদের তৎপরতায় মাঝ আকাশেই পুত্র সন্তানের জন্ম দেন ওই মহিলা।

আরও পড়ুন: সৌন্দর্যের স্টিরিওটাইপ ভেঙে পেজেন্ট জিতলেন ৫৫ বছরের মা

তবে ততক্ষণে শীঘ্র অবতরণের জন্য ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে বিমানের মুখ। কেরলের কোচির বদলে মুম্বই বিমানবন্দরে নামানো হয় বিমানটি। মা ও শিশুকে সঙ্গে সঙ্গেই নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। হাসপাতাল সূত্রে খবর, মা ও শিশু দু’জনেই সুস্থ।

জেট এয়ারওয়েজ কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে, তাঁদের বিমানে সন্তান জন্মানোর ঘটনা এই প্রথম। তাই ওই শিশুর প্রথম জন্মদিনের উপহার হিসাবে তাকে সারা জীবনের জন্য বিনামূল্যে ভ্রমণের সুযোগ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ।

সাধারণত ৩৬ সপ্তাহের বেশি হলে গর্ভবতী মহিলাদের বিমানে ওঠার অনুমতি দেয় না বিমান কর্তৃপক্ষ। এই মহিলা কত মাসের গর্ভবতী ছিলেন তা অবশ্য জানা যায়নি। বিমানে শিশুর জন্ম হলে অনেক সময় তাকে বিনামূল্যের বিমান যাত্রার পরিষেবা দেয় কর্তৃপক্ষ। কখনও বিশেষ ছাড়ের কথাও ঘোষণা করা হয়। তবে এ সংক্রান্ত কোনও নির্দিষ্ট নিয়ম নেই।