আলিবাবায় নতুন মুখ

উত্তরসূরি: জ্যাক মা (বাঁ দিকে) ও ড্যানিয়েল ঝ্যাং। ছবি: রয়টার্স

আর ঠিক এক বছর। তার পরেই নিজের হাতে তৈরি সংস্থা আলিবাবার চেয়ারম্যান পদ ছাড়বেন জ্যাক মা। তবে ২০২০ পর্যন্ত থাকবেন ডিরেক্টর হিসেবে।
সোমবারই মা-এর সংস্থা ছাড়ার ইঙ্গিত ছিল। এ দিন তা কিছুটা সত্যি করে তিনি জানালেন, ২০১৯ সালের ১০ সেপ্টেম্বর থেকে চেয়ারম্যান হবেন ৪৬ বছরের ড্যানিয়েল ঝ্যাং। ইতিমধ্যেই চিনা ই-কমার্স সংস্থার সিইও-র দায়িত্ব রয়েছে যাঁর কাঁধে।
অভাবী পরিবার থেকে দৌড় শুরু মা-এর। প্রথমে যোগ দেন শিক্ষাকতায়। পড়াতেন ইংরাজি। কিন্তু ইন্টারনেটের প্রতি আকর্ষণ থেকে নিজেই শিখেছেন তাঁর খুঁটিনাটি। আর তার পরে ১৯৯৯ সালে তাঁরই হাতে তৈরি হয় ই-কমার্স সংস্থা আলিবাবা। এখন যারা পাল্লা দেয় মার্কিন অ্যামাজনের মতো সংস্থার সঙ্গে।
৩,৯০০ কোটি ডলারের সম্পদ নিয়ে চিনের ধনীতম ব্যক্তির তকমা উঠেছে ৫৪ বছরের মা-এর গায়ে। তবে পড়ানোই যে তাঁর প্রথম ভালবাসা, তা জানাতে ভোলেননি। এ দিনও কর্মী, শেয়ারহোল্ডারদের পাঠানো চিঠিতে জানিয়েছেন, ‘‘আমার ভিতরের শিক্ষক গর্বিত। ...প্রত্যেক শিক্ষকই চান যে, ছাত্ররা তাঁকে ছাপিয়ে যান। তাই নতুন প্রজন্মের হাতে দায়িত্ব তুলে দেওয়ার এটাই সঠিক সময়।’’
বিশেষজ্ঞদের মতে, ২০১৫ সালে সিইও হওয়ার পর থেকে নিজেকে বার বারই প্রমাণ করেছেন সাংহাই ইউনিভার্সিটি অব ফিনান্স অ্যান্ড ইকনমিক্স থেকে পাশ করা ঝ্যাং। হয়ে উঠেছেন সংস্থার ‘সিঙ্গলস ডে প্রোমোশন’-এর রূপকার। যা বিশ্বে সবচেয়ে জনপ্রিয় সেল-এর দিন।
অনেকে আবার বলছেন, বিভিন্ন সংস্থার কাজে চিনা সরকারের নাক গলানোর চেষ্টা নিয়ে বিরক্ত ছিলেন মা। ফলে তাঁর জুতোয় পা গলানোর পরে ঝ্যাঙের সামনে চ্যালেঞ্জ থাকবে অনেক বেশি। তার উপরে ইট-কাঠ-পাথরের প্রথাগত বিপণিতে ব্যবসা ছড়াচ্ছে আলিবাবা। ফলে তা সফল 
করার দায়িত্বও নিতে হবে তাঁকে। তবে সংস্থার মধ্যে স্বাধীন মনোভাবের জন্য পরিচিত ঝ্যাং তা পালন করতে পারবেন বলেই আস্থা জানিয়েছেন মা।