Advertisement
Presented by
Co powered by
Associate Partners
Durga Puja 2022

পুজোর আগে ঝকঝকে করে তুলুন আপনার বাথরুমকে

শুধু যে বাজে দেখতে লাগে তা তো নয় তার সঙ্গে বাসা বাঁধে নানা রোগ জীবাণু

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

আনন্দ উৎসব ডেস্ক
শেষ আপডেট: ০১ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০৮:৪৫
Share: Save:

বাথরুম পরিষ্কার থাকাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। বাড়ি হোক বা হোটেল বাথরুম যদি পরিষ্কার না থাকে তাহোলে কিন্তু খুব মুশকিল। শুধু যে বাজে দেখতে লাগে তা তো নয় তার সঙ্গে বাসা বাঁধে নানা রোগ জীবাণু। ফলে বাথরুম পরিষ্কার না থাকলে শরীর খারাপও হতে পারে। আর বাথরুম পরিষ্কার রাখার সবথেকে প্রথম ধাপ হলো মেঝে পরিস্কার ও শুকনো রাখা। এই প্রতিবেদনে আপনাদের জন্য রইল বাথরুম পরিষ্কার রাখার কিছু টিপস।

মেঝে কী ভাবে পরিষ্কার রাখবেন

বাথরুমের মেঝেতে যদি হলুদ দাগ থাকে বা ছোপ থাক তাহলে সেই বাথরুম ব্যবহার করতে একদম ভাল লাগে না। তাই বাথরুমের মেঝে সপ্তাহে অন্তত একবার হলেও পরিষ্কার করুন। ব্লিচিং পাউদার বা অ্যাসিড ব্যবহার করতে পারেন। মেঝেতে যদি টাইলস থাকে তাহলে তার জন্য রয়েছে আলাদা বাথরুম ক্লিনার। আবার এখন নানা ধরনের টাইলস এর জন্য আলাদা আলাদা টাইলস ক্লিনার কিনতে পাওয়া যায়। বাথরুম ব্যবহার করা হয়ে গেলে মেঝেতে পড়ে থাকা অতিরিক্ত জল একটি রাবার ক্লিনার দিয়ে টেনে দিন। তাতে বাথরুম তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যাবে।

বেসিন পরিষ্কার রাখুন

অনেক সময় দেখা যায় বেসিনে ক্লের পাশে এক ধরণের হলুদ ছোপ বা দাগ ধরে গেছে। দীর্ঘ দিন ধরে জল পড়ার কারণে এই ঘটনা ঘটে। তাই চেষ্টা করুন সপ্তাহে অন্তত দু দিন বেসিন পরিষ্কার করার। তাতে এই দাগ ধরার সম্ভাবনা কম থাকে। গুঁড়ো সাবানের সঙ্গে বাথরুম ক্লিনার মিশিয়ে নিয়ে কিছুক্ষণ দাগের উপরে ছড়িয়ে রেখে দিন। তারপর ব্রাশ দিয়ে ভাল করে ঘষে নিন। তাহলেই সহজে পরিষ্কার হয়ে যাবে এই দাগ।

টাইলস পরিষ্কার রাখুন

এখন বেশিরভাগ বাথরুমেই টাইলস থাকে। বিশেষ করে অনেকেই সাদা টাইলস ব্যবহার করা পছন্দ করেন। তবে তাতে দাগ ধরে খুব তাড়াতাড়ি। এই দাগ দূরে রাখতে সপ্তাহে অন্তত দু বার বাথরুম পরিষ্কার করুন। টাইলস পরিষ্কার করার জন্য বাজারে ক্লিনার কিনতে পাওয়া যায়। অ্যাসিড ব্যবহার না করে বাথরুম ক্লিনার ব্যবহার করুন। তাতে টাইলসে ছোপ পড়ার সম্ভাবনা কম থাকে। এবং আপনার বাথরুম থাকে চকচকে।

কমোড পরিষ্কার রাখুন

এটি পরিষ্কার রাখা কিন্তু আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ। নাহলে নানা রকম জীবাণুর আস্তানা হয়ে উঠতে পারে আপনার বাথরুম। কমোড পরিষ্কার রাখার জন্য বিশেষ ধরনের ক্লিনার পাওয়া যায়। এছাড়াও কীটনাশক ট্যাবলেট পাওয়ায় যায়। যা ফ্ল্যাশ বক্সে ফেলে রাখলে ফ্লাশের সঙ্গেই কীটনাশক যুক্ত জল এসে আপনার কমোডকে পরিষ্কার রাখে।

বাথরুম থেকে দুর্গন্ধ দূরে রাখতে বাথরুম ফ্রেশনারও ব্যবহার করতে পারেন। বাথরুম পরিষ্কার থাকলে রোগজীবাণু আপনার থেকে দূরে থাকে। সুস্থ থাকুন। ভাল থাকুন।

এই প্রতিবেদনটি 'আনন্দ উৎসব' ফিচারের একটি অংশ।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.