বিদায়ী বছরেই সরব হয়েছিলেন তাঁরা। রাজনৈতিক ছাত্র সংসদের বদলে অরাজনৈতিক ছাত্র কাউন্সিল গঠনের সরকারি সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে নতুন বছরের শুরুতেই আবার আন্দোলনে নামছেন যাদবপুর ও প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের একাংশ। তাঁরা এই সিদ্ধান্ত মানবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন।

গত বছরের মাঝামাঝি ছাত্র সংসদ গড়ার বদলে সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজের ধাঁচে অরাজনৈতিক ছাত্র কাউন্সিল তৈরির সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্য সরকার। সেই সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় অগস্টে আন্দোলন শুরু হয় যাদবপুরে। উপাচার্য সুরঞ্জন দাসকে প্রায় দেড় দিন ঘেরাও করে রাখা হয়। বিক্ষোভ ছড়ায় প্রেসিডেন্সিতেও। সমাবর্তনে আচার্য-রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর সামনেই বিক্ষোভ দেখান পড়ুয়ারা। অরাজনৈতিক ছাত্র কাউন্সিলের বিরোধিতা করে সমাবর্তন বয়কট করেন এসএফআইয়ের পাঁচ সদস্য।

তার পরে যাদবপুরের পড়ুয়াদের সঙ্গে বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু সমাধানসূত্র বেরোয়নি। তার উপরে আদৌ ছাত্রভোট হবে কি না, তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয় শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যে। পরে অবশ্য তিনি জানান, উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা চুকে গেলে ছাত্রভোটের দিন ঘোষণা করা হবে। তবে সেই সময়েও চলতি শিক্ষাবর্ষের ছাত্র নির্বাচন করা যাবে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে বলে জানাচ্ছে শিক্ষা শিবির।

ভোট হলেও তা আগের মতো রাজনৈতিক ছাত্র সংসদ গঠনের জন্যই করতে হবে বলে দাবি জানাচ্ছেন তবে যাদবপুর ও প্রেসিডেন্সির পড়ুয়াদের একাংশ। অরাজনৈতিক ছাত্র কাউন্সিল গড়ার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ইতিমধ্যেই রাজ্য জুড়ে প্রচার শুরু করেছে এসএফআই। তাদের স্লোগান, ‘রক্ত দেবো, জীবন দেবো। ইউনিয়ন দেবো না’। সোশ্যাল মিডিয়ায় এসএফআইয়ের এই স্লোগান লেখা পোস্টার শেয়ার করা হচ্ছে।

যাদবপুরের কলা বিভাগের ছাত্র সংসদ এখন এসএফআইয়ের দখলে। ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পাদক দেবরাজ দেবনাথ এ দিন জানান, বুধবার বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পরে কলা, ইঞ্জিনিয়ারিং ও বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র সংসদ একসঙ্গে সাধারণ সভা ডেকে পরবর্তী আন্দোলনের অভিমুখ ঠিক করবে। দেবরাজ বলেন, ‘‘আমরা কোনও পরিস্থিতিতেই অরাজনৈতিক ছাত্র সংসদ মানবো না।’’ সেই সঙ্গে দেবরাজদের দাবি, অবিলম্বে ছাত্র সংসদের ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণা করতে হবে। প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পাদক অরিন্দম দোলই জানান, আজ, মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয় খুলছে। তার পরে তাঁরা আবার চিরাচরিত রাজনৈতিক ছাত্র সংসদের দাবিতে আন্দোলনে নামতে চলেছেন। তাঁদেরও দাবি, ছাত্রভোটের দিনক্ষণ অবিলম্বে ঘোষণা করতে হবে।