Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২২ মে ২০২২ ই-পেপার

Lip-care: কলকাতার ঠান্ডাতেও ফাটতে পারে ঠোঁট, ভরসা রাখুন প্রাকৃতিক উপাদানেই

কলকাতায় তেমন ঠান্ডা কই, এমন ভেবে যদি ঠোঁটের পরিচর্যায় আপনি ঢিলে দেন তা হলে ঠোঁট তার নিজস্ব নমনীয়তা হারিয়ে হয়ে পড়বে রুক্ষ।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৫ জানুয়ারি ২০২২ ১৩:০৬

প্রতীকী ছবি

শীতকালে আমাদের ত্বকে বিশেষ পরিচর্যা প্রয়োজন হয়। কারণ বাতাসের ক্রমশ কমতে থাকা আর্দ্রতা নরম ত্বককে শুষ্ক করে দেয়। এই জন্য ঠোঁট ফাটতে শুরু করে প্রথমেই। কলকাতা শহরে তেমন ঠান্ডা কই, এমন ভেবে যদি ঠোঁটের পরিচর্যায় আপনি ঢিলে দেন তবে অল্প সময়েই দেখতে পাবেন ঠোঁট তার নিজস্ব নমনীয়তা হারিয়ে হয়ে পড়েছে রুক্ষ, এমনকি রক্তাক্তও। এই কলকাতার ঠান্ডা য় ঠোঁট ভাল রাখতে তাই রাসায়নিক যুক্ত পণ্য এড়িয়ে চলুন, বিশেষ করে দীর্ঘস্থায়ী লিপস্টিক। নিয়মিত নারকেল বা বাদাম তেলের সঙ্গে পেপারমিন্ট তেল মিশিয়ে ঠোঁটে লাগাতে পারেন। এই সময়ে প্রাকৃতিক উপায়েই ঠোঁট ভাল রাখার দিকে নজর দিন।

১। শীতকালে ঠোঁট কালো হওয়ার একটি বড় কারণ হল মৃত কোষ জমে যাওয়া। মসৃণ এবং নরম ঠোঁট পেতে প্রাকৃতিক স্ক্রাব অত্যন্ত কার্যকর। এক টেবিল চামচ ব্রাউন সুগার বা সাদা চিনি এবং এক টেবিল চামচ মধু একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। এক মিনিটের জন্য আপনার ঠোঁটে স্ক্রাবটি হালকা ভাবে মাসাজ করুন। কয়েক মিনিট ঠোঁটে লাগিয়ে রাখুন। জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ব্রাউন সুগার ঠোঁটে কোনও অস্বস্তি না ঘটিয়েই ভাল ভাবে এক্সফোলিয়েট করে।

২। গোলাপের পাপড়ি প্রাকৃতিক ভাবে আপনার ঠোঁটকে পুষ্টি জোগায়। আধ কাপ দুধে ৫-৬টি গোলাপের পাপড়ি সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন। সকালে দুধ থেকে পাপড়ি ছেঁকে নিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এই পেস্টটি আপনার ঠোঁটে লাগান এবং ১৫ মিনিটের জন্য রেখে দিন। উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন দেখতে এটিকে প্রতি রাতের রূপ-রুটিনে যুক্ত করুন। গোলাপের পাপড়ি এবং দুধ উভয়ই প্রাকৃতিক ময়শ্চারাইজার। গোলাপের নির্যাস ভারসাম্য বজায় রাখে এবং ঠোঁটকে আর্দ্র রাখতে সহায়তা করে।

Advertisement
গোলাপের পাপড়ি এবং দুধ উভয়ই প্রাকৃতিক ময়শ্চারাইজার।

গোলাপের পাপড়ি এবং দুধ উভয়ই প্রাকৃতিক ময়শ্চারাইজার।


৩। হলুদ একটি সুপরিচিত আয়ুর্বেদিক উপাদান যা পিগমেন্টেশনের চিকিৎসায় সাহায্য করে। তবে এর ব্যবহার শুধু ত্বক উজ্জ্বল করার মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। ঠোঁটের কালচে ভাব দূর করার জন্যও দুধের সঙ্গে হলুদ মিশিয়ে ব্যবহার করা হয়। এক চা চামচ দুধে আধা চা চামচ হলুদ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্টটি আপনার ঠোঁটে ৫ মিনিটের জন্য রেখে দিন। পেস্ট শুকিয়ে উষ্ণ জল দিয়ে আপনার ঠোঁট পরিষ্কার করুন।

৪। এক টেবিল চামচ অ্যালো ভেরা জেল এবং এক চামচ মধু একসঙ্গে মিশিয়ে এটি আপনার ঠোঁটে লাগান। ১৫ মিনিটের জন্য রেখে দিন এবং তাত্ক্ষণিক ফলাফল দেখতে অল্প ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। কলকাতার মতো শীতে অ্যালো ভেরা এবং মধু উভয়ই আপনার ঠোঁটকে আর্দ্র করে তুলবে।

৫। শীতকালে এই শহরে এখন স্ট্রবেরি পাওয়া যায়। স্ট্রবেরিতে ভিটামিন, অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট এবং খনিজ উপাদান রয়েছে যা ঠোঁটকে কালো হতে বাধা দেয় এবং উজ্জ্বল রাখে। এই কারণেই বাজারে প্রচুর লিপবাম স্ট্রবেরি স্বাদযুক্ত। স্ট্রবেরির সেরা উপকারিতা পেতে, আপনি এটি সরাসরিও ঠোঁটে লাগাতে পারেন। তা ছাড়া শুধু একটি স্ট্রবেরি থেঁতো করে তাতে অলিভ তেল কয়েক ফোঁটা যোগ করে সপ্তাহে তিন-চার দিন ঠোঁটে লাগাতে পারেন। কলকাতার শীতে আপনার ঠোঁটও থাকবে সুন্দর এবং নরম।

Advertisement