Follow us on
Powered by
Co-Powered by
Co-Sponsors
Powered by
Co-Powered by
Co-Sponsors

শুধু গরম থেকে বাঁচতে নয়, অন্দরসজ্জায় শহরবাসী বেছে নিচ্ছেন কোন পর্দা

দেওয়ালের রঙের সঙ্গে সামঞ্জস্য না থাকলে কিন্তু নতুন পর্দা কেনাই মাটি।

অর্পিতা রায়চৌধুরী
কলকাতা| ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৮:৩১ শেষ আপডেট: ০২ মার্চ ২০২১ ১২:১৮

প্রতীকী চিত্র

গরমের দুপুরে জানলায় ভারী পর্দা টেনে ঘুমাতে অনেকেরই ভাল লাগে। শুধু আলো নয়, দাবদাহ আটকাতেও ভারী পর্দার বিকল্প নেই। শুধু তাই নয়, অন্দরসজ্জার অন্যতম অঙ্গও হয়ে উঠতে পারে পর্দা। বিছানার চাদরের মতো পর্দা পাল্টালেও চটজলদি বদলে যায় ঘরের রূপটান। কলকাতার বাজারে এখন রকমারি পর্দা। সম্ভার থেকে নিজের পছন্দ এবং সাধ্য অনুযায়ী কিনে নিন। যে ঘরের জন্য কিনছেন, তার দেওয়ালের রঙের কথা মাথায় রাখবেন। দেওয়ালের রঙের সঙ্গে সামঞ্জস্য না থাকলে কিন্তু নতুন পর্দা কেনাই মাটি।

আমাদের দেশের বেশিরভাগ অংশই গ্রীষ্মপ্রধান। ইচ্ছে হলে, দু’রকম পর্দা কিনে রাখতে পারেন। গরমকালের জন্য সুতির পর্দা। শীতকালে জানলা দরজাকে দিতেই পারেন রেশমি পরশ, সিল্কের পর্দা।

পর্দা তো টাঙালেই হবে না। তার যত্নও নিতে হবে। ঠিকমতো যত্নআত্তি করলে আপনার পর্দা দীর্ঘায়ু হবে।প্রথমেই মনে রাখুন, কড়া রোদ্দুর কিন্তু পর্দার জন্য ক্ষতিকর। যে উপাদানেরই পর্দা হোক না কেন, বা যে রঙের, পর্দাকে বাঁচিয়ে রাখুন সূর্যের আলো থেকে। পর্দার যে অংশ ঘরের বাইরে দিকে থাকবে, সেখানে লাইনিং দিন।

প্রতিদিন সকালে এবং রাতে যখন পর্দা টেনে সরাবেন, আস্তে করে পর্দা ধরে ঝাড়ুন। তাহলে পর্দা থেকে ধূলিকণা পড়ে যাবে। রোদ্দুরের মতো ধুলোও কিন্তু পর্দার কাপড়ের ক্ষতি করে।মাসে এক বার ভ্যাকুয়াম ক্লিনার দিয়ে পর্দা পরিষ্কার করুন। তবে অবশ্যই খুব হাল্কাভাবে। দেখবেন যন্ত্রের গতি যেন পর্দার বোতাম, সেলাই বা অন্য সজ্জার কোনও ক্ষতি না করে।

হাতেই কাচুন বা ওয়াশিং মেশিনে দিন, পর্দার কাপড়ের ধরনের ব্যাপারে খেয়াল রাখবেন। সবসময় ঠান্ডা জলে মাইল্ড ডিটারজেন্ট দিয়ে কাচবেন। ওয়াশিং মেশিনে যখন পর্দা কাচতে দেবেন, দেখবেন যেন ওভারলোডেড না হয়ে যায়। আজকাল সব ওয়াশিং মেশিনেই পর্দা কাচার জন্য বিশেষ মোড থাকে। সেটা অবশ্যই বেছে নেবেন। কাচতে দেওয়ার আগে বা সাবানজলে ভেজানোর আগে পর্দায় লাগানো হুক থাকলে খুলে রাখবেন।

শোকানোর পরে পর্দা তুলে রাখার আগে অবশ্যই ইস্ত্রি করে নেবেন। তবে সব সময় পর্দার উল্টোদিক, অর্থাৎ যেটা ঘরের বাইরে থাকছে, সেদিকে ইস্ত্রি করবেন। তবে অনেক পর্দার জন্য কাচা কিন্তু নৈব নৈব চ। কেনার সময় সেই সংক্রান্ত নির্দেশাবলী ভাল করে পড়ে নিন। প্রচুর কাজ আছে বা বাহারি কুঁচি দেওয়া ভারী পর্দা কাচতে নিষেধ করা হয়। সেক্ষেত্রে ভ্যাকুয়াম ক্লিনার ছাড়া গতি নেই।পর্দার যত্ন নিন। আপনার অন্দরমহলের সজ্জা থাকবে পর্দানসীন এবং নিবিড়।

আরও পড়ুন