Advertisement
Durga Puja 2022

গ্রেটার বার্মিংহামের এই পুজোর শুরু বিজ্ঞানীর হাত ধরেই

সেই নিয়ে রেষারেষি কম হয়নি| সরে গিয়েছিলেন মঞ্চ থেকে| কিন্তু কালের অমোঘ নিয়মে যোগ্যতার ঢেউ বানভাসি হয়ে ফিরে এসেছে|

আলাবামার দুর্গাপুজো

আলাবামার দুর্গাপুজো

আনন্দ উৎসব ডেস্ক
শেষ আপডেট: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৩:০৯
Share: Save:

মহিলা পুরোহিত শব্দটার মধ্যে একটা বেশ আধুনিকতা জড়িয়েছে এখন| মিডিয়ার দৌলতে এবং সাহিত্য সিনেমায় জায়গা পেয়ে পুজোর সাহায্যকারী থেকে মেয়েদের খোদ পুজোর মালকিন হয়ে ওঠা বাজারে বিকোচ্ছে খুব| কিন্তু সেই সময়ে সে রকম ছিল না | ২০১০ সালে আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়া নিউ ইয়র্ক এসবের মত নামজাদা জায়গা থেকে অনেক দূরে একটা নিশ্চিন্ত রাজ্যে একজন পদার্থবিদ নিজের হাতে তুলে নিচ্ছিলেন ইতিহাস বদলে দেওয়ার ভার | যে কথা কেউ জানুক বা নাই জানুক তার পরোয়া কিংবা সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখনদারি কোনওটাই করেননি তিনি|

Advertisement

আলাবামা রাজ্যের বেঙ্গলি অ্যাসোসিয়েশন অফ গ্রেটার বার্মিংহ্যাম পুজো কমিটির সতী নাথ এমনি একজন প্রধান মহিলা পুরোহিত | পাশে পেয়েছিলেন ডাক্তার স্বামীকে এবং একজন জ্ঞানী মানুষকে যাঁকে তিনি বলতেন 'মেসোমশাই'| আরও তিন চারজন সহকারীকে সঙ্গে নিয়ে পুজো করে আসছেন সতী| শুরুর কিছু বছর পেয়েছেন প্রতিরোধ| নিজে ব্রাহ্মণ নন | সেই নিয়ে রেষারেষি কম হয়নি| সরে গিয়েছিলেন মঞ্চ থেকে| কিন্তু কালের অমোঘ নিয়মে যোগ্যতার ঢেউ বানভাসি হয়ে ফিরে এসেছে| সতী পেয়েছেন নিজের জায়গা| শুধু মহিলা পুরোহিত নন, এখন তিনি বিধবাও বটে| কিন্তু আর কোনও প্রতিরোধ মাথা তুলে দাঁড়ায়নি তাঁর সাহসের সামনে|

পুজোর আয়োজন বেঙ্গলি এসোসিয়েশন অফ গ্রেটার বার্মিংহ্যাম পুজো কমিটির

পুজোর আয়োজন বেঙ্গলি এসোসিয়েশন অফ গ্রেটার বার্মিংহ্যাম পুজো কমিটির

পুজো তাঁর পেশা নয়, নেশা বটে| পদার্থবিদ্যার গবেষক সতী রীতিমতো চর্চা করেছেন আধুনিক পুরোহিত দর্পণ নিয়ে| করেছেন নানান গঠনমূলক কাজ| সঙ্গে যাদের পেয়েছেন তাদেরকেও শিখিয়ে পড়িয়ে তৈরি করেছেন পুজোর জন্য| এই প্রগতিশীল পুজোয় লোকের সংখ্যা প্রায় দু'শো আড়াইশ|

শুধু বাঙালি নয়, আলাবামা রাজ্যের এটি একমাত্র বারোয়ারী পুজো যেখানে নানা সম্প্রদায়ের লোকের ভিড় দেখা যায়| ভোগের পাঁপড় বানান একজন গুজরাতি মহিলা| বিদেশী বাবা এবং সাউথ ইন্ডিয়ান মায়ের ছোট্ট ছেলে বাঙালি বর সেজে মঞ্চ কাঁপায়| মনোরম সান্ধ্য অনুষ্ঠান জুড়ে থাকেন নানা শিল্পীরা| ভোগের দায়িত্ব নেন নিজেরাই| দেশ থেকে মা বাবা এলে তাঁরাও মেতে ওঠেন পুজোয়| রয়েছে পুজোর ম্যাগাজিনও| সমাজসেবার অংশ হিসেবে থাকে হলিডে গিফট বক্স, স্থানীয় হোমলেস মানুষদের খাওয়ানোর নানা কর্মকান্ড|

Advertisement

কোভিডকালেও মুখে মাস্ক বেঁধে পুজোর আয়োজন করেছেন সবাই, সতীর গ্যারাজেই| পুরোহিত হয়ে উঠেছেন পুজোর কান্ডারি| তাঁর দেখানো পথেই হয়ত একদিন হাঁটবে আমেরিকা ও বিশ্বের আরও অন্যান্য পুজো| আড়ালে রয়ে যাবেন সতী, কিংবা ভাস্বর হয়ে উঠবেন নিবিড় হয়ে, একাকী| আগামী প্রজন্ম তাঁকে চিনে নেবে ঠিক।

এই প্রতিবেদনটি 'আনন্দ উৎসব' ফিচারের অংশ।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.