Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৭ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

খেলা

স্লো পিচেও পেসারদের দাপট, সেরাদের প্রথম ছয়ে শুধুই চহাল

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ০১ নভেম্বর ২০২০ ১৫:০২
আইপিএলের সব ম্যাচ খেলা হবে মাত্র তিনটি মাঠে। এই ঘোষণার পরই দলের স্পিনারদের গুরুত্ব নিয়ে শুরু হয় আলোচনা। মনে করা হচ্ছিল, সময় যত এগোবে ভাঙতে শুরু করবে পিচ। লাভবান হবেন স্পিনাররা। তাঁদের ঘূর্ণিতে ঝড় উঠবে শারজা, দুবাই, আবু ধাবিতে। কিন্তু বাস্তবে যে ছবিটা দেখা যাচ্ছে তা বেশ আলাদা।

পার্পল ক্যাপের দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন বিশ্বের তাবড় পেসাররাই। বেশ কিছু দিন ধরে তালিকার শীর্ষে ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার কাগিসো রাবাদা। দিল্লি ক্যাপিটালসের এই পেসারের ঝুলিতে ইতিমধ্যেই ২৩ উইকেট। প্লে অফে গেলে সেই সংখ্যা যে আরও বাড়বে তা বলাই বাহুল্য।
Advertisement
দক্ষিণ আফ্রিকান পেসারের ধারাবাহিকতা এনে দিয়েছে সাফল্য। প্রতি ম্যাচেই ছাপ ফেলেছে তাঁর পেস এবং বুদ্ধিদিপ্ত বোলিং। পাওয়ার প্লেতে নিশ্চিন্তে তাঁর হাতে বল তুলে দিয়েছেন শ্রেয়াস আইয়ার।

শনিবার রাবাদাকে টপকে বেগুনি টুপি তুলে নিয়েছেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের যশপ্রীত বুমরা। ১৩ ম্যাচে তাঁরও সংগ্রহ ২৩ উইকেট। ইকনমির দিক থেকে এগিয়ে রয়েছেন তিনি।
Advertisement
মুম্বইকে লাসিথ মালিঙ্গার অভাব বুঝতেই দিচ্ছেন না বুমরা। তাঁর কৃপণ বোলিং হয়ে উঠেছে দলের বাড়তি সম্পদ। নতুন বল নয়, মুম্বই দলে তিনি হয়ে উঠেছেন ডেথ ওভার স্পেশালিষ্ট। প্রতিপক্ষ যখন তাড়াতাড়ি রান তোলার জন্য ব্যস্ত, তখন তাঁদের ঘুম কেড়ে নিচ্ছেন ভারতের এই পেসার।

প্রথম ছয়ে এক মাত্র স্পিনার যুজবেন্দ্র চহাল। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর দলের এক নম্বর বোলার তিনি। ধারাবাহিক ভাবে উইকেট যেমন নিয়ে চলেছেন, আটকে রাখছেন রানও।

১৩ ম্যাচে তাঁর ঝুলিতে ২০ উইকেট। পারপেল ক্যাপের লড়াইয়ে তিনি রয়েছেন ৩ নম্বরে। যখনই বিপদে পড়েছেন বিরাট কোহালি। তিনি বল তুলে দিয়েছেন চহালের হাতে।

মুম্বই দলের পেস আক্রমণ এ বারের আইপিএলে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে। ডেথ ওভারের জন্য বুমরাকে নিশ্চিন্তে রেখে দেওয়া যাচ্ছে কারণ শুরুতে রয়েছেন ট্রেন্ট বোল্ট।

পাওয়ার প্লেতে উইকেট নিয়ে বিপক্ষের মাথায় আঘাত হানছেন কিউই পেসার। ১৩ ম্যাচে তাঁর সংগ্রহ ২০ উইকেট। প্লে অফে লড়াই জমবে বুমরা বনাম বোল্টেরও। দু’জনেই ছিনিয়ে নিতে চাইবেন পার্পল ক্যাপ।

ভারতের পেস আক্রমণ যে বিশ্বের সেরাদের সঙ্গে লড়াইয়ে তৈরি তা বুঝিয়ে দিচ্ছে এই তালিকায় মহম্মদ শামির নাম। প্রথম পাঁচে তিন ভারতীয়র মধ্যে রয়েছেন দুই পেসার। শামির ঝুলিতেও রয়েছে ২০ উইকেট।

কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বোলিং বিভাগকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন তিনিই। উইকেট নিলেও রান দিয়ে ফেলছেন মাঝে মাঝে। সেই দিকে নজর দিলে আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারেন তিনি।

তালিকায় রয়েছেন রাজস্থান রয়্যালসের জোফ্রা আর্চারও। রাজস্থানের বাকি বোলাররা যখন উইকেট নিতে ভুলে গিয়েছেন তখন একা আক্রমণ শানাচ্ছেন ইংরেজ পেসার।

১৩ ম্যাচে তাঁর সংগ্রহ ১৯ উইকেট। রাজস্থানের বাকি বোলাররা যখন উইকেট সংখ্যা ১০ পার করতে পারেননি, তখন তিনি প্রতি ম্যাচেই স্বস্তি দিয়ে চলেছেন স্টিভ স্মিথকে।

একই মাঠে বার বার খেলা। ভেঙে যাচ্ছে পিচ। কিন্তু তাতেও স্পিনাররা নয়, বলের লাইন-লেন্থ, গতি পরিবর্তনে দাপট দেখাচ্ছেন পেসারদেরই। রশিদ খান, বরুণ চক্রবর্তীরা চেষ্টা করছেন। কিন্তু পার্পল ক্যাপের দৌড়ে এগিয়ে বুমরারাই।