Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

৩০ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

ভোডাফোনে ৪০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করতে পারে দুই মার্কিন সংস্থা

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৯:০৬
ভোডাফোনে বিনিয়োগের সম্ভাবনা জোরদার হচ্ছে। —প্রতীকী ছবি

ভোডাফোনে বিনিয়োগের সম্ভাবনা জোরদার হচ্ছে। —প্রতীকী ছবি


সরকারের দেনা মেটাতে সুপ্রিম কোর্ট ১০ বছরের সময়সীমা দিতেই ভোডাফোন-আইডিয়াতে বিনিয়োগের সম্ভাবনা জোরদার হচ্ছে। দুই মার্কিন সংস্থা ভেরাইজন কমিউনিকেশনস ও অ্যামাজন মিলে ধুঁকতে থাকা ভোডাফোন-আইডিয়ায় ৪০০ কোটি মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করতে পারে বলে সূত্রের খবর। ভোডাফোনের ১০ শতাংশ শেয়ার হস্তান্তর হতে পারে বলেও খবর।

এই বিনিয়োগ নিয়ে ভোডাফোনের সঙ্গে মার্কিন দুই সংস্থার আলোচনা অবশ্য দীর্ঘদিন ধরেই চলছিল। কিন্তু ভোডাফোনের ঘাড়ে বিপুল দেনা থাকায় এবং সুপ্রিম কোর্টে স্পেকট্রাম ও লাইসেন্স ফি বকেয়ার মামলা ঝুলে থাকায় দুই সংস্থাই কিছুটা পিছিয়ে যায়। তার মধ্যেই মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট ভোডাফোন-সহ টেলিকম সংস্থাগুলিকে বকেয়া মেটানোর জন্য ১০ বছরের সময়সীমা মঞ্জুর করেছে। আর এই খবরের পরেই ফের আলোচনা গতি পেয়েছে। যদিও ভোডাফোন বা সম্ভাব্য বিনিয়োগকারী দুই সংস্থার কেউই এ নিয়ে মন্তব্য করতে চায়নি।

ভোডাফোন ইতিমধ্যেই স্পেকট্রাম ও লাইসেন্স ফি বাবদ কেন্দ্রকে ৭৮৫৪ কোটি টাকা মিটিয়ে দিয়েছে। কিন্তু তার পরেও আরও প্রায় ৫০ হাজার কোটি টাকা বাকি রয়েছে। সেই টাকা মেটানোর জন্য এ বার আরও ১০ বছরের সময় পেয়ে যাওয়াতেই এই সংস্থা ঘুরে দাঁড়াতে পারে বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল। সেই আশাতেই বিনিয়োগে নতুন করে তিন সংস্থার মধ্যে আলোচনার বল গড়াতে শুরু করেছে বলে খবর।

Advertisement

আরও পড়ুন: জনস্বার্থে মোদীর দান ১০৩ কোটি টাকা, পিএম কেয়ার্স নিয়ে বিতর্ক সামলাতে পরিসংখ্যান!

আরও পড়ুন: ‘ভুল শুধরে নিন’, অ্যাপ নিষিদ্ধ করার প্রতিবাদ জানাল চিন

বিনা পয়সায় লোকাল-এসটিডি কল, অত্যন্ত কম দামে ফোর জি ইন্টারনেট পরিষেবা নিয়ে রিলায়্যান্সের জিয়ো বাজারে আসার পরে চাপে পড়ে যায় অধিকাংশ ভারতীয় সংস্থা। তার মধ্যে অনেক সংস্থা ব্যবসা গুটিয়ে নিতে বাধ্য হয়। ব্রিটিশ সংস্থা গাঁটছড়া বাঁধে ভারতের আদিত্য বিড়লা গ্রুপের আইডিয়া সেলুলার-এর সঙ্গে। কিন্তু জিয়োর সঙ্গে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে ট্যারিফ কমাতে গিয়ে সংস্থার ঘাড়ে চাপে বিরাট লোকসানের বোঝা। শুধুমাত্র ২০১৯-২০ অর্থবর্ষে নিট লোকসান হয়েছে ৭৩ হাজার ৮৭৮ কোটি টাকা। চলতি অর্থবর্ষের প্রথম ত্রৈমাসিকে ক্ষতির অঙ্ক ২৫ হাজার ৪৬০ কোটি।

আরও পড়ুন

Advertisement