×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৪ জুন ২০২১ ই-পেপার

টিসিএস থেকেও বিদায় মিস্ত্রির

মুম্বই
সংবাদ সংস্থা  ১৪ ডিসেম্বর ২০১৬ ০২:০০
টিসিএস ইজিএমে যোগ দিতে আসছেন রতন টাটা।-পিটিআই

টিসিএস ইজিএমে যোগ দিতে আসছেন রতন টাটা।-পিটিআই

শূন্যই ছিল তাঁর চেয়ার। মঙ্গলবার টিসিএসের বৈঠকে গরহাজিরই ছিলেন সাইরাস মিস্ত্রি। আর, বৈঠক শেষে তাঁকে পাকাপাকি ভাবে কুর্শি থেকে সরানোর পক্ষেই রায় দিলেন শেয়ারহোল্ডাররা।

বোর্ডরুম লড়াইয়ে টাটা কনসালট্যান্সি সার্ভিসেস (টিসিএস)শেয়ারহোল্ডারদের দেওয়া ভোটে মিস্ত্রির জেতার সম্ভাবনা যে ছিল না, বৈঠকের আগে দেওয়া বিবৃতিতে সেই ইঙ্গিত দেন তিনি নিজেই। সংস্থা সূত্রের খবর, বৈঠকে হাজির থাকা শেয়ারহোল্ডারদের মধ্যে ৯৩.১১% মিস্ত্রিকে সরানোর পক্ষে রায় দেন। বিপক্ষে পড়ে ৬.৮৯% ভোট। তবে বেশি রাতে মিস্ত্রির দফতর থেকে জারি করা বিবৃতির পাল্টা দাবি, মালিকদের বাদ দিলে সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের ৭০% তাঁকে বহাল রাখার পক্ষে ভোট দেন। যাঁরা টিসিএস শেয়ারহোল্ডারদের প্রায় ২০%। মিস্ত্রি শিবিরের মতে, এটা তাঁদের ও মিস্ত্রির পরিচালনার সমর্থনে ‘বড় মাপের নৈতিক জয়’।

এ দিন টিসিএস শেয়ারহোল্ডারদের কাছে শেষ বারের মতো তাঁকে সমর্থনের আর্জি জানিয়ে বিবৃতি পাঠান মিস্ত্রি। টাটা সন্সের হাতে ৭৩% অংশীদারি থাকা টিসিএসে শেয়ারহোল্ডারদের ভোটের রায়ে তাঁর সরে যাওয়া যে-অবধারিত, সেই ইঙ্গিত দিয়েও মিস্ত্রির যুক্তি ছিল, ‘‘ক্ষমতা ধরে রাখা আমার উদ্দেশ্য নয়। আমার লড়াই বিশাল টাটা গোষ্ঠীর ‘সত্তা’-কে বাঁচিয়ে রাখার।’’ মিস্ত্রির বক্তব্য বৈঠকে পড়ে শোনানোর পাশাপাশি টাটাদের তরফে এ দিন পাল্টা দাবি, ‘‘টাটা সন্স ও টাটা ট্রাস্টের বিশ্বাস ও আস্থা হারিয়েছেন মিস্ত্রি। এখন টিসিএসের স্বার্থ সবচেয়ে বেশি বজায় থাকবে, যদি তিনি সরে দাঁড়ান।’’ যে ৩৮ জন শেয়ারহোল্ডার ১৫০ মিনিটের ইজিএমে সরব ছিলেন, তাঁদের বেশির ভাগ ছিলেন মিস্ত্রিকে সরানোর পক্ষে। তবে কয়েক জন বিক্ষুব্ধ হয়ে প্রশ্ন করেন, কেন কারণ ছাড়া সরানো হচ্ছে মিস্ত্রিকে।

Advertisement

বস্তুত, টাটা সন্সের চেয়ারম্যান পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার পরে গোষ্ঠীর বিভিন্ন সংস্থার পর্ষদ থেকেও মিস্ত্রিকে সরাতে এ মাসে ডাকা হয়েছে একের পর এক সংস্থার বিশেষ সাধারণ সভা বা ইজিএম। সোমবারই প্রথম ইজিএমে টাটা ইন্ডাস্ট্রিজ সরিয়ে দিয়েছে মিস্ত্রিকে। তার পর মঙ্গলবার ছিল টিসিএসের পালা।

টাটা-মিস্ত্রি সংঘাতের মধ্যেই অবশ্য কার্যত টাটা ট্রাস্টের পাশে দাঁড়াল বিভিন্ন অ-সরকারি সংস্থা। টাটা ও মিস্ত্রি শিবিরের পাশাপাশি তৃতীয় পক্ষ হিসেবেই উঠে আসছে তাদের মত। টিসিএস, ইন্ডিয়ান হোটেলস, টাটা স্টিলের মতো সংস্থার পর্ষদের কাছে এক চিঠিতে তাদের আশঙ্কা, মিস্ত্রির সঙ্গে সংঘাতের জের টাটা ট্রাস্টের হাত ধরে সমাজকল্যাণের বিভিন্ন কাজও ব্যাহত হতে পারে। এই কারণেই ভোটাভুটির দিকে ইঙ্গিত করে ভেবে-চিন্তে সিদ্ধান্ত নিতে অনুরোধ করেছে তারা।

এ দিকে মিস্ত্রি ও তাঁর সমর্থক বলে পরিচিত শিল্পপতি নুসলি ওয়াদিয়াকে পর্ষদ থেকে সরাতে ২২শে ইজিএম টাটা মোটরসের। স্টক এক্সচেঞ্জ সূত্রের খবর, তার আগে মঙ্গলবার বাড়তি ২৪৩০ কোটি টাকার শেয়ার কিনে সংস্থায় অংশীদারি প্রায় ২% বাড়াল টাটা সন্স। টাটা মোটরসে এই মুহূর্তে টাটা সন্সের অংশীদারি ২৬.৯৮%।

দিনভর

•বৈঠকে গরহাজির মিস্ত্রি

শ্রোতার আসনে প্রথম সারিতে রতন টাটা

মিস্ত্রির বিবৃতি পড়ে শোনালেন কোম্পানি সেক্রেটারি

ক্ষমতা আঁকড়ে থাকা নয়, টাটা গোষ্ঠীর স্বার্থ বাঁচানোই লক্ষ্য, দাবি মিস্ত্রির

মিস্ত্রি টাটাদের আস্থা হারিয়েছেন, সওয়াল টিসিএস কর্তৃপক্ষের

চাপরাশি, ড্রাইভারকেও এ ভাবে সরানো যায় না, মত বিক্ষুব্ধ শেয়ারহোল্ডারের

রায় মিস্ত্রির বিপক্ষেই

Advertisement