Advertisement
২৮ নভেম্বর ২০২৩

জিএসটি-সেসের সীমা বাঁধল পরিষদ

দামি গাড়ির মতো বিলাস পণ্য এবং বোতলবন্দি ঠান্ডা পানীয়ের উপর প্রস্তাবিত সেস-এর ঊর্ধ্বসীমা ১৫ শতাংশে বাঁধল জিএসটি পরিষদ। এই হার আরও চড়া পানমশলা, তামাকে। কয়লায় তা টনে ৪০০ টাকা।

মুখোমুখি: বৈঠক উপলক্ষে অমিত মিত্র, জেটলি। পিটিআই

মুখোমুখি: বৈঠক উপলক্ষে অমিত মিত্র, জেটলি। পিটিআই

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ১৭ মার্চ ২০১৭ ০৩:০৪
Share: Save:

দামি গাড়ির মতো বিলাস পণ্য এবং বোতলবন্দি ঠান্ডা পানীয়ের উপর প্রস্তাবিত সেস-এর ঊর্ধ্বসীমা ১৫ শতাংশে বাঁধল জিএসটি পরিষদ। এই হার আরও চড়া পানমশলা, তামাকে। কয়লায় তা টনে ৪০০ টাকা।

একই সঙ্গে বৃহস্পতিবার পরিষদের বৈঠক শেষে সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি জানান, চার ধরনের জিএসটি নিয়েই আর দ্বিমত নেই। অর্থাৎ, কেন্দ্রের বসানো (সিজিএসটি), রাজ্যের বসানো (এসজিএসটি), কেন্দ্র ও রাজ্য মিলে বসানো (আইজিএসটি) এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের বসানো (ইউটিজিএসটি) জিএসটির খসড়া বিল নিয়ে চূড়ান্ত ঐকমত্য হয়েছে। এ দিন তা হয়েছে এসজিএসটি এবং ইউটিজিএসটি নিয়ে। বাকি দু’টি নিয়ে আগেই ঐকমত্য হয়েছিল।

আরও পড়ুন: জিও-কে টক্কর দিতে পাল্টা প্রকল্প আনল বিএসএনএল

জিএসটি-তে রাজ্যগুলির রাজস্ব ক্ষতি হলে, প্রথম পাঁচ বছর তা মেটাতে করের উপরে সেস চাপানোর সিদ্ধান্ত আগেই নেওয়া হয়েছে। এ দিন বিলাস দ্রব্য ও ঠান্ডা পানীয়ে তার ঊর্ধ্বসীমা ১৫ শতাংশে বেঁধেছে পরিষদ। জেটলির অবশ্য আশ্বাস, সেস তার চেয়ে কমও হতে পারে। যেমন, হয়তো দেখা গেল, দামি গাড়িতে ২৮% কর আর ১২% সেস বসল। কিন্তু আরও ৩% হাতে রাখা হচ্ছে প্রয়োজনে তা বাড়ানোর রাস্তা খুলে রাখতে। ঠিক যে-ভাবে ওই ধরনের পণ্যে করের সর্বোচ্চ হার (২৮%) বৃদ্ধির সুযোগ রাখা হয়েছে ৪০% পর্যন্ত। যাতে সে জন্য বারবার সংসদের সায় না লাগে।

জিএসটির নথিভুক্তির কাজ শুরু হয়েছে ইতিমধ্যেই। কিন্তু এই অল্প সময়ে ছোট-মাঝারি শিল্প এর জন্য পুরোদস্তুর তৈরি হতে পারবে কি না, সে বিষয়ে সন্দিহান অনেকে।

বৈঠকে যা হল


এসজিএসটি এবং ইউটিজিএসটি নিয়ে খসড়া বিলে ঐকমত্য। পরিষদে পাশ চার ধরনের জিএসটি-ই


দামি গাড়ির মতো বিলাস পণ্য, ঠান্ডা পানীয়ে সেসের সীমা ১৫%


পানমশলায় তা ১৩৫%, তামাকে ২৯০%, কয়লায় প্রতি টনে ৪০০ টাকা। বিড়িতে এখনও ঠিক হয়নি।


পরের বৈঠক ৩১ মার্চ বিকেলে। আলোচনা অল্প কিছু খসড়া বিল ও নতুন কর জমানার পরিকাঠামো নিয়ে

সামনে লক্ষ্য


চার রকম জিএসটি ও ক্ষতিপূরণের খসড়ায় মন্ত্রিসভার সায়


বাজেট অধিবেশনের দ্বিতীয় দফায় জিএসটির যাবতীয় বিল পাশ


ক্ষতিপূরণ, সিজিএসটি, আইজিএসটি বিল সংসদে আর এসজিএসটি বিল বিধানসভায় পাশ*


কোন পণ্য, পরিষেবায় কী হারে কর, তা ঠিক করা। কাউন্সিলের বৈঠকে তাতে সায়


১ জুলাই থেকে জিএসটি চালু

* কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের নিজস্ব বিধানসভা থাকলে (যেমন দিল্লি), ইউটিজিএসটি পাশ করাতে হবে সেখানে। নইলে সংসদে

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE