এক দিকে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা এড়িয়ে অশোধিত তেল রফতানির পথ খোঁজা। অন্য দিকে, উৎপাদন বাড়ানো নিয়ে তেল রফতানিকারী দেশগুলির সংগঠন ওপেকের অন্যতম সদস্য সৌদি আরবকে পরোক্ষ হুঁশিয়ারি। রবিবার এ ভাবেই বিশ্বের অশোধিত তেলের বাজারে নিজের দখল ধরে রাখার কথা ঘোষণা করল ইরান।

শনিবারই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছিলেন, ইরান ও ভেনেজুয়েলার সমস্যার জেরে তেল উৎপাদনে ঘাটতির সম্ভাবনা রয়েছে। তাই সৌদি আরবকে দিনে ২০ লক্ষ ব্যারেল উৎপাদন বাড়ানোর কথা বলেছেন তিনি। সৌদি আরব তাতে রাজি বলেও ট্রাম্পের দাবি।

এর পরেই আজ ইরানের তেলমন্ত্রী বিজান জ়ানগানেহ্‌ ওপেককে পাঠানো চিঠিতে লিখেছেন, ঠিক হওয়া নির্দিষ্ট সীমার বাইরে গিয়ে ওপেকের কোনও সদস্য দেশ তেল উৎপাদন বাড়ালে, তা হবে চুক্তি ভাঙা এবং ইরানের বিরুদ্ধে বিশ্বাসঘাতকতার সামিল। কোনও ভাবেই বিশ্বের অশোধিত তেলের বাজারে নিজেদের দখল তেহ্‌রান অন্যের হাতে তুলে দেবে না। কোনও দেশ চুক্তি ভাঙলে, তার ফল পেতে হবে বলেও জানগানেহ্‌র দাবি।

একই সঙ্গে পণ্য বাজারের মাধ্যমে আগামী দিনে বেসরকারি তেল সংস্থাগুলিকে অশোধিত তেল রফতানির সুযোগ দেওয়ার কথাও জানিয়েছে ইরান। যে কোনও মূল্যে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা সফল না হতে দেওয়াই যার লক্ষ্য বলে এ দিন জানিয়েছেন ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট এশাক জাহানগিরি।