শুধু অনুমোদনের অপেক্ষা। দ্বিতীয় হুগলি সেতুর মতো মাঝেরহাটেও হবে ঝুলন্ত সেতু। পঞ্জাবের একটি সংস্থা এই সেতুর নকশা তৈরি করছে। সেই নকশা রেল এবং রাজ্য অনুমোদন করলেই কাজ শুরু হয়ে যাবে।

সূত্রের খবর, ওই ঝুলন্ত সেতু তৈরি করতে আনুমানিক প্রায় ১৭০ কোটি টাকা খরচ হতে পারে। ইতিমধ্যেই সেতু তৈরির টেন্ডারের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে বলে নবান্ন সূত্রে খবর। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দ্রুত সেতু নির্মাণের কাজ শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন।

প্রথমে ঠিক হয়েছিল, রাজ্য সরকার নিজেই সেতু তৈরি করবে। পরে সিদ্ধান্ত বদলানো হয়। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশেই টেন্ডার প্রক্রিয়া শুরু হয়। ভারতের নামী কনস্ট্রাকশন কোম্পানিগুলি তাতে অংশ নেয়। সেতু নির্মাণের জন্য যে টেন্ডার জমা পড়ে, সেই আবেদনকারী সংস্থাগুলোর মধ্যে থেকে গত ২৫ অক্টোবর বেছে নেওয়া হয় পঞ্জাবের একটি নির্মাণকারী কোম্পানিকে। তারাই সেতু নির্মাণ করছে। প্রথমে ঠিক হয়েছিল, পুরোনো চেহারাতেই ফিরিয়ে দেওয়া হবে মাঝেরহাট সেতুকে। পরে ঠিক হয়, নকশায় পরিবর্তন করা হচ্ছে। দক্ষিণ কলকাতার যানবাহনের চাপের কথা মাথায় রেখে সেতুর পরিধি বাড়ানো হচ্ছে। রাস্তা হবে চার লেনের।

গ্রাফিকশৌভিক দেবনাথ 

তবে এ বিষয়ে রাজ্য সরকারের পাশাপাশি রেলের ছাড়পত্রও দরকার। শিয়ালদহ থেকে বজবজ পর্যন্ত প্রায় ৮০ জোড়া ট্রেন চলাচল করত প্রতি দিন। কিন্তু বেইলি ব্রিজ চালু হওয়ার পর, ট্রেনের সংখ্যা কমে গিয়েছে। এখন আলিপুর এবং নিউ আলিপুরের মধ্যে সংযোগকারী বেইলি ব্রিজ দিয়ে ছোট গাড়ি এবং বাইক যাতায়াত করছে। বাস চলছে ব্রেস ব্রিজ এবং দুর্গাপুর সেতু দিয়ে। দ্রুত মাঝেরহাট ব্রিজ তৈরি হয়ে গেলে, এই ভোগান্তির অবসান ঘটবে।

(শহরের সেরা খবর, শহরের ব্রেকিং নিউজ জানতে এবং নিজেদের আপডেটেড রাখতে আমাদের কলকাতা বিভাগ পড়ুন।)