শহরের ফুটপাত, রাস্তার ধারে থাকা বড় গাছের গোড়া ঘেঁষে কোনও কংক্রিটের বেদি রাখা যাবে না। গত শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ কলকাতা পুর প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছিল, কোথাও গাছের গোড়ায় এমন বেদি থাকলে তা ভেঙে দিতে হবে। আগামী ছ’সপ্তাহের মধ্যে সেই নির্দেশ পালন করতে হবে বলে জানায় হাইকোর্ট। সোমবার পুরসভার পার্ক ও উদ্যান দফতরের মেয়র পারিষদ দেবাশিস কুমার বলেন, হাইকোর্টের নির্দেশ মেনে আগামী বুধবার থেকে শহরের বিভিন্ন গাছের নীচে থাকা বেদি ভাঙার কাজ শুরু করা হবে।

কলকাতার বিভিন্ন ফুটপাথের ধারে গাছের চারপাশে কংক্রিটের বেদি ভাঙার আবেদন জানিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে জনস্বার্থে মামলা দায়ের করেছিল একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। ওই সংগঠনের পক্ষে আইনজীবী ঋতুপর্ণা চট্টোপাধ্যায় সোমবার জানান, গত শুক্রবার ডিভিশন বেঞ্চ কলকাতা পুরসভার কমিশনারকে ছ’সপ্তাহের মধ্যে ওই সব বেদি ভাঙার জন্য নির্দেশ দিয়েছে। মামলায় বলা হয়েছিল, যে ভাবে ওই সব বেদি তৈরি করা হয়েছে, তাতে গাছের গোড়ায় জল-হাওয়া ঢুকছে না। মাটি আলগা হয়ে যাচ্ছে। গাছ মরে যাচ্ছে। কেবল তা-ই নয়, বেদি তৈরি করায় পথচারীদের অসুবিধা হচ্ছে। পুরসভার এক আধিকারিক জানান, শহরের কোন কোন এলাকায় বেদি ঘেরা গাছ রয়েছে, তার খোঁজ শুরু হচ্ছে মঙ্গলবার থেকে। তার পরেই শুরু হবে বেদি ভাঙার কাজ।