ডিউটি করার সময়ে বেপরোয়া মিনিবাসের ধাক্কায় আহত হলেন কলকাতা পুলিশের এক ট্র্যাফিক সার্জেন্ট। বাইপাসের ধারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে তিনি চিকিৎসাধীন। তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল বলেই হাসপাতাল ও তাঁর পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পৌনে সাতটা নাগাদ মানিকতলা সেতুর কাছে ওই দুর্ঘটনা ঘটে। মৌড়িগ্রাম-সল্টলেক রুটের একটি মিনিবাসের ধাক্কায় আহত হন অরুণ মণ্ডল নামে ওই সার্জেন্ট। তিনি মানিকতলা ট্র্যাফিক গার্ডে কর্মরত। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেপরোয়া গতিতে আসা মিনিবাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অরুণবাবুকে ধাক্কা মারে। পরে চালক-সহ বাসটিকে ধরে পুলিশ। বাসটি কোন পরিস্থিতিতে অরুণবাবুকে ধাক্কা মারল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাসটি অরুণবাবুকে ধাক্কা মারলে তিনি রাস্তায় পড়ে অজ্ঞান হয়ে যান। আহত সার্জেন্টকে উদ্ধার করতে ছুটে আসেন লোকজন। খবর পেয়ে পৌঁছন মানিকতলা ট্র্যাফিক গার্ডের অন্য পুলিশকর্মীরাও। তাঁরাই অরুণবাবুকে নিয়ে হাসপাতালে যান। সেখানে তাঁর বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা করা হয়।

পুলিশ অবশ্য জানাচ্ছে, বাসের ধাক্কায় ছিটকে গিয়ে অরুণবাবু একটি গাড়ির সামনে পড়েন। সেটি কোনও মতে ব্রেক কষে দাঁড়িয়ে যাওয়ায় অরুণবাবু প্রাণে বেঁচে যান।

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগেই কলকাতা পুলিশ পরিসংখ্যান দিয়ে জানিয়েছে, গত বছরের তুলনায় চলতি বছরের অক্টোবর মাস পর্যন্ত দুর্ঘটনায় মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে। বেপরোয়া চালকদের বিরুদ্ধে ব্যাপক হারে ব্যবস্থা নেওয়ায় অনেকেই সতর্ক হয়েছেন। তবে এ দিনের ঘটনা বুঝিয়ে দিল, চালকদের সবাই এখনও সতর্ক নন।

আহত সার্জেন্টের বাবা অনাথবন্ধু মণ্ডলও কলকাতা পুলিশের কর্মী। তাঁরা উল্টোডাঙার বিধান শিশু পুলিশ আবাসনের বাসিন্দা। অনাথবন্ধুবাবু বলেন, ‘‘ছেলের অবস্থা স্থিতিশীল। বড় বিপদের থেকে বেঁচে গিয়েছে।’’