নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করেই বেলঘরিয়া এক্সপ্রেসওয়ের বিপজ্জনক উড়ালপুল দিয়ে চলছিল ভারী গাড়ি। অবশেষে তা বন্ধ করতে কড়া ব্যবস্থা নিল পুলিশ।

বেলঘরিয়া এক্সপ্রেসওয়ের এয়ারপোর্ট সিটি থেকে শুরু করে বিমানবন্দরের আড়াই নম্বর গেটের কাছে নেমেছে একটি উড়ালপুল। বেলঘরিয়ার দিক থেকে আসা ছোট-বড় সব গাড়িই ওই উড়ালপুল ধরে বিমানবন্দরের দিকে যায়। কয়েক মাস আগে ওই উড়ালপুলের স্বাস্থ্য পরীক্ষার সময়েই বেশ কয়েকটি ফাটল নজরে আসে ইঞ্জিনিয়ারদের। এর পরেই রাজ্য পূর্ত দফতর থেকে বিষয়টি জেনে ওই উড়ালপুলে ভারী যান চলাচল নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়।

এ জন্য বোর্ডও লাগিয়ে দেন জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ ছিল, নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও রাতে ভারী লরি ওই উড়ালপুল দিয়ে অনবরত যাচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের তরফে সেই অভিযোগ জানানো হয় বিধাননগর পুলিশ কর্তাদের কাছেও।

বিধাননগর পুলিশ সূত্রের খবর, প্রতিদিন রাত ৯টা নাগাদ ‘নো-এন্ট্রি’ উঠে যাওয়ার পরে ভারী লরি ওই উড়ালপুলে ওঠে। সোমবার রাত থেকে রীতিমতো পুলিশ মোতায়েন করে ভারী গাড়ি আটকানো শুরু হয়ে গিয়েছে। এত দিন উড়ালপুলে ওঠার মুখে কয়েকটি নিষেধাজ্ঞার বোর্ড ছিল। এ বার রাস্তায় রেলিং আটকে তাতে ঝোলানো হয়েছে সেই বোর্ড। বেলঘরিয়ার দিক থেকে আসা লরিকে যশোর রোডের দিকে পাঠানো হচ্ছে। সেখানে বাঁকড়া থেকে ঘুরে ফের বিমানবন্দরের দিকে আসছে ওই লরিগুলি।

পুলিশ সূত্রের খবর, বেশ কয়েক দিন গভীর রাত পর্যন্ত এ ভাবেই চলবে গাড়ি ঘুরিয়ে দেওয়ার প্রক্রিয়া। তার পরে ওই উড়ালপুলে হাইটবার লাগানো হবে। যাতে নজর এড়িয়ে ভারী গাড়ি উড়ালপুলে উঠে পড়লেও পারপার হতে বাধা পায়।

বিধাননগরের পুলিশ কমিশনার লক্ষ্মীনারায়ণ মিনা বলেন, ‘‘পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে উড়ালপুলে ভারী গাড়ি চলাচল বন্ধ করতে ওই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’’