মাঝেরহাটে সেতু বিপর্যয়ের পরে প্রশ্ন উঠেছিল, পুজোর সময়ে ওই এলাকার ভিড় সামলানো যাবে কেমন করে? সেই সমস্যার সমাধানে তড়িঘড়ি বেইলি ব্রিজ বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। মহালয়ার সন্ধ্যায়, সোমবার মাঝেরহাট খালের উপরে একটি বেইলি ব্রিজের কাঠামো বসানোর কাজ সম্পূর্ণ হল। অন্য ব্রিজটি বসানোর কাজও আজ, মঙ্গলবার সকালের মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে বলে গার্ডেনরিচ শিপ বিল্ডার্স সূত্রে খবর। তবে ওই পথে এখনই যান চলাচল শুরু হচ্ছে না। কারণ, ব্রিজের কোল ঘেঁষে দু’প্রান্তে কয়েক মিটার রাস্তা তৈরি এখনও বাকি।

যদিও পূর্তকর্তাদের আশা, রাস্তা তৈরি-সহ আনুষঙ্গিক কাজ বৃহস্পতিবারের মধ্যে শেষ হবে। তার পরে জরুরি পরীক্ষা, পর্যবক্ষেণ এবং ট্র্যাফিকের কাজের জন্য এক দিন সময় রাখা হতে পারে। শুক্রবারের মধ্যে ব্রিজ এবং লেভেল ক্রসিংয়ের কাজ শেষ করতে চায় পূর্ত দফতর।

প্রসঙ্গত, বেইলি ব্রিজের ইস্পাতের বিভিন্ন অংশ জোড়ার কাজ শুরু হয়েছিল গত সপ্তাহে। তার পরে ইস্পাতের রোলারের উপরে ব্রিজ রেখে নিউ আলিপুরের দিক থেকে ঠেলে হুমায়ুন কবীর সরণির দিকে আনা হচ্ছিল। এ দিন সন্ধ্যায় একটি ব্রিজ বসানোর কাজ শেষ করা হয়। পূর্ত দফতর সূত্রে খবর, নিউ আলিপুর অ্যাভিনিউয়ের দিক থেকে ব্রিজে ওঠার আগে রাস্তার দু’ধারে জোরালো আলো বসানো হচ্ছে। লেভেল ক্রসিংয়ের দিকেও লাগানো হচ্ছে আলো। শেষ হয়েছে ক্রসিংয়ের দু’প্রান্তে ‘বুম বার’ বসানোর কাজ।

বেইলি ব্রিজের অ্যাপ্রোচ রোডে পুলিশের তরফে ট্র্যাফিক 

সিগন্যাল পয়েন্ট বসানোর কাজ শুরু হয়েছে। শীঘ্রই ‘সাইনেজ’ (চিহ্ন) এবং ‘স্পিড ব্রেকার’ বসানো শুরু হবে। পূর্ত দফতরের এক আধিকারিকের দাবি, ‘‘মঙ্গলবারের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে ৯০ শতাংশ কাজ। বাকি 

কাজও সময়ে শেষ করতে সকলে দিন-রাত খাটছেন।’’