ফের কাজের দিনে মিছিলের জেরে অবরুদ্ধ হল শহর। পুলিশ জানিয়েছে, বিজেপি যুব মোর্চার কলকাতা পুরসভা অভিযান উপলক্ষে বুধবার সকাল ১১টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টে পর্যন্ত চিত্তরঞ্জন অ্যাভিনিউয়ের একাংশ বন্ধ করে দেওয়া হয়। দীর্ঘ সময় ওই রাস্তাটি বন্ধ থাকায় উত্তর এবং মধ্য কলকাতায় ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়। বিকেলে এসইউসিআইয়ের একটি মিছিলের জেরে ফের উত্তর কলকাতার বিস্তীর্ণ অংশ যানজটের মুখে পড়ে। ফলত দিনভর উত্তর ও মধ্য কলকাতায় যানজটে নাকাল হলেন সাধারণ মানুষ।

পুলিশ সূত্রের খবর, এ দিন বিজেপি যুব মোর্চার কলকাতা পুরসভা অভিযান উপলক্ষে সকাল ১১টা থেকেই বি বি গাঙ্গুলি স্ট্রিটের মোড় থেকে ধর্মতলার টিপু সুলতান মসজিদ পর্যন্ত চিত্তরঞ্জন অ্যাভিনিউ পুরো বন্ধ করে দেওয়া হয়। এর জেরে শ্যামবাজার থেকেই ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়। ট্র্যাফিক পুলিশ সূত্রের খবর, মিছিলের জন্য এ দিন দক্ষিণমুখী গাড়িগুলিকে শ্যামবাজারের দিক থেকে চিত্তরঞ্জন অ্যাভিনিউ ধরে বি বি গাঙ্গুলি স্ট্রিট, লালবাজার স্ট্রিট, বি বা দী বাগ হয়ে পাঠানো হচ্ছিল। এর ফলে ধর্মতলা সংলগ্ন সব রাস্তা যানজটের কবলে পড়ে। একই ভাবে শহরের দক্ষিণ দিক থেকে আসা গাড়িগুলিকে লেনিন সরণি, নির্মলচন্দ্র স্ট্রিট হয়ে কলেজ স্ট্রিট দিয়ে ঘোরানো হচ্ছিল। পুলিশ জানিয়েছে, লেনিন সরণি, কলেজ স্ট্রিট, মৌলালি, শিয়ালদহেও গাড়ির চাকা দীর্ঘ ক্ষণ থমকে ছিল।

জোড়াবাগান ট্র্যাফিক গার্ডের এক সার্জেন্ট বলেন, ‘‘এমনিতেই টালা সেতু বন্ধ থাকার জন্য ডানলপ, শ্যামবাজার, বেলগাছিয়ায় হাঁসফাঁস অবস্থা। 

গোদের উপর বিষফোঁড়া হয়ে দাঁড়াল এ দিনের মিছিল।’’ পুলিশ জানিয়েছে, বিজেপি যুব মোর্চার কলকাতা পুরসভা অভিযান শেষ হতে না হতেই উত্তর কলকাতার হেদুয়া থেকে এসইউসিআইয়ের একটি বিশাল মিছিল বেরোয়। পুলিশ জানিয়েছে, ওই মিছিলে প্রায় হাজার তিনেক মানুষ ছিলেন। এসইউসিআইয়ের মিছিলের জেরে বিধান সরণি, কলেজ স্ট্রিট, এম জি রোড, সূর্য সেন স্ট্রিট, বি বি গাঙ্গুলি স্ট্রিট, নির্মলচন্দ্র স্ট্রিট-সহ উত্তর ও মধ্য কলকাতার একাধিক রাস্তা ফের যানজটের কবলে পড়ে। অন্য দিকে, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা বিভিন্ন দাবিদাওয়া নিয়ে ৪টে নাগাদ কলেজ স্ট্রিট অবরোধ করেন। তারও প্রভাব পড়ে রাস্তায়। সন্ধ্যার পর ধীরে ধীরে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।