• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বাইরেও নজরে বিদ্যাসাগর

Statue
সেই মূর্তি। নিজস্ব চিত্র

Advertisement

কলেজে সদ্য বসানো নতুন দু’টি বিদ্যাসাগর মূর্তির নিরাপত্তার জন্য কলেজের বাইরেও একটি সিসিটিভি রাখার পরিকল্পনা করছেন বিদ্যাসাগর কলেজ কর্তৃপক্ষ। 

ইতিমধ্যেই কলেজের ভিতরে সিসিটিভি ক্যামেরা বসে গিয়েছে। ফলে কলেজের ভিতরে বিদ্যাসাগরের নতুন মূর্তিটি যথেষ্ট সুরক্ষিত বলে মনে করছেন কর্তৃপক্ষ। এ বার বাইরের বিদ্যাসাগরের মূর্তির নিরাপত্তার জন্য কলেজের রাস্তার উল্টো দিকে একটি সিসিটিভি বসানো হবে বলে জানালেন বিদ্যাসাগর কলেজের অধ্যক্ষ গৌতম কুন্ডু। গৌতমবাবু বলেন, ‘‘বিধান সরণির উপরে কলেজের দিকে মুখ করে যদি একটা সিসিটিভি লাগানো থাকে, তা হলে কলেজের বাইরের বিদ্যাসাগরের মূর্তিটিও অনেকটা সুরক্ষিত থাকবে।’’

লোকসভা নির্বাচন চলাকালীন গত ১৪ মে বিজেপির সর্ব ভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের রোড শো থেকে বিদ্যাসাগর কলেজে ঢুকে হামলা চালানোর অভিযোগ ওঠে। ওই হামলায় বিদ্যাসাগর কলেজের ভিতরে বিদ্যাসাগরের আবক্ষ মূর্তিও ভেঙে টুকরো টুকরো হয়ে যায়। কিন্তু কলেজে সেই সময়ে সিসিটিভি খারাপ থাকায় কারা এই হামলা চালালো এবং কারা বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙল সেই নিয়ে ধোঁয়াশা থেকেই যায়। এর পরে গত ১১ জুন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিদ্যাসাগর কলেজে দু’টি মূর্তি উদ্বোধন করেন। সে দিনই মূর্তি দু’টি উদ্বোধনের সঙ্গে সঙ্গেই বিদ্যাসাগর কলেজের ভিতরে সিসিটিভি নতুন করে চালু হয়ে যায়।

তবে ভিতরে সিসিটিভি থাকলেও কলেজের বাইরে কোনও সিসিটিভি নেই। আর সেটা নিয়েই চিন্তায় কলেজ কর্তৃপক্ষ। কলেজের বাইরে যে বিদ্যাসাগরের মূর্তি বসানো হয়েছে সেটি ফাইবার গ্লাসের পূর্নাবয়ব মূর্তি। ওই মূর্তিটি চার দিনে রাত জেগে তৈরি করেছেন শিল্পী গৌতম পাল। তাঁর তৈরি মূর্তি দেশে বিদেশে বিভিন্ন জায়গায় রয়েছে। কলেজ কর্তৃপক্ষের মতে, এ রকম এক নামী শিল্পীর মূর্তি বাইরে অরক্ষিত থাকবে সেটা তাঁরা চান না। 

তবে শুধু মূর্তির সুরক্ষার জন্যই নয়, কলেজের নিরাপত্তার জন্যও কলেজের বাইরে সিসিটিভি লাগানোর প্রয়োজন বলে মনে করেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। কলেজের অধ্যক্ষ গৌতম কুণ্ডু জানান, কলেজের নিরাপত্তা বাড়ানোর জন্য কলেজের প্রাচীর উঁচু করা হয়েছিল। এর পরে আমরা ফের ওই উঁচু প্রাচীরের উপরে তার বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এ বার যদি সিসিটিভি লাগানো হয় তা হলে কলেজের ভিতরের মতো কলেজের বাইরেটাও অনেকটা সুরক্ষিত থাকবে। গৌতমবাবু বলেন, ‘‘এই সিসিটিভি লাগানোর ব্যাপারে কলকাতা পুলিশের সঙ্গেও আমরা কথা বলছি।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন