পুর এলাকার বিভিন্ন জায়গায় এ বার থেকে মিলবে বিনামূল্যে ইন্টারনেট পরিষেবা। ‘গ্রিন সিটি মিশন’ প্রকল্পে মঙ্গলবার রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম কামারহাটি থেকে এই ‘ওয়াইফাই-হটস্পট’ প্রকল্পের সূচনা করেন। মন্ত্রী বলেন, ‘‘মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরণাতেই এই ব্যবস্থা হচ্ছে। যাতে পুর এলাকার মানুষ আরও বেশি করে প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে পারেন।’’ এ দিনই বিটি রোডের উপরে কামারহাটি পুরসভার সামনে ওই পরিষেবা চালু হয়। পুর কর্তারা জানান, পুরসভার সামনে থাকা যে কোনও মানুষ সহজেই ওই পরিষেবার সাহায্যে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারবেন।

পুর চেয়ারম্যান গোপাল সাহার কথায়, ‘‘সারা দিন ধরে গোটা পুর এলাকায় ইন্টারনেট পরিষেবা দেওয়া খরচ সাপেক্ষ। তাই কয়েকটি  জায়গা ছাড়া বাকি এলাকায় দিনের নির্দিষ্ট সময়ে ওই পরিষেবা মিলবে।’’ পুরসভা সূত্রের খবর, প্রথম পর্যায়ে কামারহাটি পুর এলাকার দক্ষিণেশ্বর, আদ্যাপীঠ মন্দির, সাগর দত্ত মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল-সহ এলাকার বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ওই  পরিষেবা মিলবে। তবে রোগীর পরিজনেদের সুবিধার্থে সাগর দত্ত হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টাই মিলবে ওই পরিষেবা।

পুরসভা সূত্রের খবর, পরিষেবা দেওয়ার জন্য ভ্রাম্যমাণ একটি গাড়িও ৩৫টি ওয়ার্ডে ঘুরবে। যেখানে ওই গাড়ি যাবে সেখানেই মিলবে ইন্টারনেট পরিষেবা। ইতিমধ্যেই
পুর এলাকার বিভিন্ন জায়গা চিহ্নিত করে আটটি টাওয়ার বসানো হবে বলেও জানান পুর কর্তারা। এ জন্য প্রায় তিন কোটি টাকা খরচে পুরো কাজটি হচ্ছে। টাওয়ার বসানোর পরেও যে এলাকাগুলি সীমানার বাইরে থেকে যাবে, সেখানে নিয়মিত নির্দিষ্ট সময়মতো ওই ভ্রাম্যমাণ গাড়ি ঘুরবে বলেই জানান পুর আধিকারিকেরা।