এক মহিলাকে চাকরি দেওয়ার নাম করে আর্থিক প্রতারণা ও ধর্ষণের অভিযোগে এক শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে দুর্গাপুরের নিউ টাউনশিপ থানার পুলিশ। পুলিশ জানায়, ধৃতের নাম গণেশ রাজদেও। তিনি বর্ধমানের বাবুরবাগের একটি হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক। বৃহস্পতিবার তাঁকে দুর্গাপুর আদালতে তোলা হলে বিচারক জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে চার দিন পুলিশি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেন। পুলিশ জানায়, ধৃতকে জেরা করে গোটা ঘটনা সম্পর্কে বিশদ তথ্য পাওয়ার চেষ্টা করা হবে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, দুর্গাপুরের বিধাননগরের এক মহিলা গত ১০ এপ্রিল দুর্গাপুর আদালতে ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। আদালতে তিনি অভিযোগ করেন, চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে অভিযুক্ত ব্যক্তি তাঁর কাছ থেকে টাকা, গয়না সব হাতিয়ে নিয়েছেন। তাঁকে ধর্ষণও করা হয়েছে। আপত্তিকর দৃশ্য ভিডিয়ো করে তাঁকে ভয় দেখানো হত বলেও অভিযোগ করেন মহিলা। 

মহিলা দাবি করেছেন, নির্দিষ্ট দিন পেরিয়ে যাওয়ার পরে চাকরি না মেলায় তিনি অভিযুক্তের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তখন ওই ব্যক্তি তাঁর কথা অস্বীকার করেন। এর পরেই আদালতে মামলা করেন মহিলা। আদালত নিউটাউনশিপ থানাকে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেয়। বৃহস্পতিবার পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায়।

সরকার পক্ষের আইনজীবী সিদ্ধার্থ বসু বলেন, ‘‘আদালতে শ্লীলতাহানি ও ধর্ষণের অভিযোগ জানিয়েছেন মহিলা। সেই মামলাতেই আদালতের নির্দেশে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।’’ বর্ধমানের বাবুরবাগের ওই স্কুলের তরফে কেউ এই ঘটনা নিয়ে কোনও কথা বলতে চাননি।