দল থেকে সরে দাঁড়ানোর ইচ্ছাপ্রকাশ করলেন পূর্বস্থলী উত্তরের প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক তপন চট্টোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার দলের জেলা সভাপতি স্বপন দেবনাথের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন তিনি।

তৃণমূলের জন্মলগ্ন থেকেই তপনবাবু দলে রয়েছেন। দল সূত্রে জানা যায়, প্রথম বার পূর্বস্থলী ২ পঞ্চায়েত সমিতিতে ক্ষমতা দখলে তাঁর বড় ভুমিকা ছিল। দলের ব্লক সভাপতির পদেও ছিলেন দীর্ঘদিন। এ বার পঞ্চায়েত সমিতির আসনে জিতেছেন তিনি। তবে নানা সময়ে দলের গোষ্ঠী-কোন্দলের ঘটনায় তাঁর নাম জড়িয়েছে।

তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, সম্প্রতি মেড়তলা পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠনের পরেই তপনবাবু এই পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন। ওই পঞ্চায়েতে প্রধান হিসেবে দল তাপসী সর্দারের নাম ঠিক করে দেয়। অথচ, সদস্যেরা প্রধান হিসেবে বেছে নেন তপনবাবুর অনুগামী হিসেবে পরিচিত উদয় আশকে। এই ঘটনার পরেই এলাকায় তাঁর বিরোধী গোষ্ঠীর লোকজন অভিযোগ তোলেন, দলীয় নেতৃত্বের নির্দেশ উপেক্ষা করার পিছনে তপনবাবুর হাত রয়েছে। দলের কাছে এ নিয়ে রিপোর্টও পাঠানো হয়। তপনবাবুর ঘনিষ্ঠ নেতা-কর্মীদের সূত্রে জানা যায়, এই ঘটনার পরেই সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন তিনি। বুধবার দলের পূর্বস্থলী ২ ব্লকের পর্যবেক্ষক তথা কাটোয়ার বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়কে তা জানিয়েও দেন। বৃহস্পতিবার একটি রক্তদান শিবিরে উপস্থিতি জেলা সভাপতি স্বপনবাবুর কাছে তিনি পদত্যাগপত্র দেন।

তপনবাবুর বক্তব্য, ‘‘এলাকায় ঘর বিলি নিয়ে দুর্নীতি হয়েছে। বলে কোনও লাভ হয়নি। দলের খারাপ সময় এলে আবার রাজনীতি করব। এ কথা পদত্যাগপত্রেও জানিয়েছি।’’ যদিও পদত্যাগপত্র গৃহীত হয়নি বলে জানান স্বপনবাবু। তিনি বলেন, ‘‘মান-অভিমান থাকতেই পারে। তবে ওঁর পদত্যাগপত্র গৃহীত হয়নি।’’