ভাগীরথীতে জল-পরিবহণকে আরও সুরক্ষিত করতে মঙ্গলবার কাটোয়ার ফেরিঘাটে এসে পৌঁছল দু’টি লঞ্চ। এক বারে ৮০ জন যাত্রী পারাপারে সক্ষম ওই লঞ্চ দু’টি দিয়েছে রাজ্য পরিবহণ দফতর, জানায় কাটোয়া পুরসভা।

পুরপ্রধান রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় জানান, গত বছর পরিবহণমন্ত্রীর কাছে এলাকায় অত্যাধুনিক লঞ্চ পরিষেবা চালু করার জন্য আর্জি জানানো হয়েছিল। এ দিন পুরপ্রধান বলেন, ‘‘আশা করি, তিন-চার দিনের মধ্যে কাটোয়া থেকে লঞ্চ পরিষেবা চালুও হয়ে যাবে।’’

পুরসভা সূত্রে খবর, প্রাথমিক ভাবে কিছু দিন লঞ্চের পাশাপাশি নৌকাও চলবে। তবে পরে প্রয়োজনে নৌকায় পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হবে। লঞ্চের সুবিধার্থে বল্লভপাড়ার দিকে একটি স্থায়ী জেটি তৈরির পরিকল্পনাও রয়েছে বলে পুরপ্রধান জানান। আপাতত পুরসভা লঞ্চ দু’টি রক্ষণাবেক্ষণ করবে।

লঞ্চ আসায় খুশি যাত্রীরাও। পল্লব দাস, নমিতা দলুই-সহ যাত্রীদের একাংশ জানান, জেটি নৌকার তুলনায় উঁচু। ফলে নৌকার সঙ্গে জেটির ধাক্কা লাগে। এই পরিস্থিতিতে ছোট-বড় দুর্ঘটনা হওয়ার আশঙ্কা থেকেই যায়। ওই যাত্রীরা বলেন, ‘‘লঞ্চের উচ্চতা বেশি হওয়ায় জেটির সঙ্গে তা সামঞ্জস্যপূর্ণ হবে। যাত্রী পরিবহণও সুরক্ষিত হবে।’’

পুরসভা জানায়, লঞ্চ পারাপারের ভাড়া নৌকার সমানই থাকবে।