• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পাড়া-স্তরে সংগঠন গড়ে তোলার উদ্যোগ তৃণমূলে

TMC
প্রতীকী ছবি।

বিধানসভা ভোটের দিকে নজর রেখে পাড়া স্তরে সংগঠন মজবুত করতে উদ্যোগী হল তৃণমূল। কালনা ২ ব্লকে শনিবার এ ব্যাপারে এলাকার নেতা-কর্মীদের নিয়ে একটি বৈঠক করেন ব্লকের দলীয় নেতৃত্ব। 

 এই ব্লকে ৮টি পঞ্চায়েত এলাকায় রয়েছে ১৫৫টি বুথ। গত লোকসভা ভোটে ৮,৮৭৩ ভোটে এগিয়েছিল তৃণমূল। এ দিন বিকেলে এলাকার এক হিমঘরে পঞ্চায়েত এলাকার বুথ, অঞ্চল কমিটির সঙ্গে যুক্ত নেতা-কর্মীদের বৈঠকে ডাকে তৃণমূল। দল সূত্রে জানা গিয়েছে, বৈঠকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, বিধানসভা ভোটে ভাল ফল করতে গেলে পাড়ায় গড়ে তুলতে হবে শক্তিশালী সংগঠন। অর্থাৎ, বুথ স্তরকে আরও নীচে নেমে কাজ করতে হবে। ব্লকের শাসক দলের নেতারা জানান, রাজ্য কমিটির নির্দেশে প্রতিটি বুথ থেকে তিন জন কর্মীর নাম তাঁরা পাঠিয়ে দিয়েছেন। তবে নিজেরা তৈরি রেখেছেন বুথ কমিটিতে পাঁচ জন করে কর্মীকে। ছোট অঞ্চল কমিটিগুলি ১৫ জন এবং বড় অঞ্চলগুলিতে ২১ জনের কমিটি তৈরি করা হয়েছে। 

 তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন বৈঠকে ঠিক হয়েছে, বিধানসভা ভোট পর্যন্ত প্রতিদিনই বিভিন্ন বুথে গিয়ে সভা করা হবে। বুথ কমিটি পাড়ায়-পাড়ায় বৈঠক সারবে। ব্লক তৃণমূল সভাপতি প্রণব রায় বলেন, ‘‘পাড়ায়-পাড়ায় শুধু বৈঠক নয়। প্রতিটি পাড়ার দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে দু’জন করে কর্মীকে, যাঁরা সাধারণ মানুষের অভাব-অভিযোগ শুনবেন।’’ তাঁর দাবি, ব্লক কমিটি পালা করে অঞ্চল কমিটির সঙ্গে বৈঠক করবে। সংগঠনকে আরও শক্তিশালী করতেই সংগঠনকে পাড়া স্তরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি। জেলা পরিষদের সহ-সভাধিপতি তথা তৃণমূলের জেলা কো-অর্ডিনেটর দেবু টুডু এই ব্লকেরই বাসিন্দা। তাঁর কথায়, ‘‘ভাল ফল করার জন্য শক্তিশালী সংগঠনের বিকল্প নেই। শনিবার বৈঠকে কর্মীদের মধ্যে উৎসাহ দেখা গিয়েছে।’’

বিজেপির অবশ্য দাবি, লোকসভা ভোটের পর থেকে এই ব্লকে তাদের সংগঠন আরও শক্তিশালী হয়েছে। দলের জেলা সহ-সভাপতি ধনঞ্জয় হালদারের দাবি, ‘‘ওই ব্লকে শাসক দলে অন্তর্কলহ রয়েছে। ভোট হলে আমরা দেখিয়ে দেব, কতটা শক্তিশালী আমদের সংগঠন।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন