অটোকে পাশ কাটাতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি বাস উল্টে যায় নয়ানজুলিতে। তা দেখে চালক নিয়ন্ত্রণ হারানোয় উল্টে যায় অটোটটিও। শনিবার দুপুরে মগরা থানার চাঁপারুই এলাকায় এই দুর্ঘটনায় জখম হল সব মিলিয়ে অন্তত ৩৫ জন। তাঁদের মধ্যে ৩০ জন বাসযাত্রী। আহতদের মগরা গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে প্রাথমিক চিকিৎসার পরে কয়েকজনকে ছেড়ে দেওয়া হয়। কয়েকজনকে চুঁচুড়া সদর হাসপাতালে এবং কয়েকজনকে কলকাতার হাসপাতালে স্থানান্তরিত করানো হয়। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ৪ নম্বর রুটের বাসটি জিটি রোড ধরে চুঁচুড়া থেকে মেমারি যাচ্ছিল। অটোটি যাত্রী নিয়ে পান্ডুয়া থেকে মগরা যাচ্ছিল। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ যায়। যাত্রীদের কারও মাথা, কারও পা বা হাতে গুরুতর চোট লাগে। বাস এবং অটোটি আটক করে পুলিশ।        

আহত বাসযাত্রীদের মধ্যে দীপক দে বলেন, ‘‘বৈঁচী যাচ্ছিলাম। মগরা থেকে ওই বাসে উঠি। চাঁপারুই মোড় আসতেই হঠাৎ ঝাঁকুনিতে সব অন্ধকার হয়ে গেল। বেশ কিছুক্ষণ পর দেখি আমি মগরা হাসপাতালে শুয়ে। এ যাত্রায় বেঁচে গেলাম।’’ আনুসুয়া বিবি নামে আর এক যাত্রীর কথায়, ‘‘কিছু বোঝার আগেই আমাদের বাসটি উল্টে যায়। আমার মাথা এবং ডান হাতে চোট লেগেছে।’’

অটো-চালক অলোক দাস বলেন, ‘‘চার যাত্রীকে নিয়ে মগরার দিকে যাচ্ছিলাম। হঠাৎ রুটের বাসটি যে ভাবে পাশে চলে আসে, ভয় পেয়ে যাই। তাই অটোর নিয়ন্ত্রণ হারাই। অটো উল্টে গেলেও আমার বা যাত্রীদের তেমন চোট লাগেনি। প্রাথমিক চিকিৎসার পরে চিকিৎসকেরা ছেড়ে দেন।’’