• দেবাশিস দাশ
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পরিধি আরও বাড়ছে হাওড়া পুরসভার

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে পরিধি বাড়তে চলেছে হাওড়া পুরসভার। তার পাশাপাশি পুলিশ কমিশনারেটের এলাকাও বাড়ানোর চিন্তা ভাবনা শুরু হয়েছে।

বছর খানেক আগেই বালি পুরসভার ১৬টি ওয়ার্ডকে হাওড়ার সঙ্গে যুক্ত করে নেওয়ায় পুরসভার ওয়ার্ডের সংখ্যা ৫০ থেকে বেড়ে হয়েছিল ৬৬। এ বার হাওড়া পুরসভা এলাকা লাগোয়া দক্ষিণ হাওড়া বিধানসভা কেন্দ্রের চারটি গ্রাম পঞ্চায়েত এবং ডোমজুড় বিধানসভা কেন্দ্রের বালি জগাছা ব্লকের আটটি গ্রাম পঞ্চায়েত পুর এলাকায় সংযুক্ত করা হবে বলে পুরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে। হাওড়ার পুর কমিশনার নীলাঞ্জন চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘রাজ্য সরকারের ছাড়পত্র পেলেই হাওড়া পুরসভার ওয়ার্ডের সংখ্যা ১২০-র কাছাকাছি পৌঁছে যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে মেয়র পারিষদের সংখ্যা যেমন বাড়বে, তেমনই বাড়বে বরো অফিসের সংখ্যাও।’’

পুরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে, গত পুরসভা নির্বাচনের পরেই মুখ্যমন্ত্রী হাওড়া পুরসভা লাগোয়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকাগুলিকে পুর এলাকায় অন্তর্ভুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য হল, হাওড়া শহর যেহেতু পূর্ব দিকে আর বাড়ানো সম্ভব নয়, সেহেতু তা পশ্চিম দিকেই বাড়াতে হবে। আর এই বাড়ানোর কাজ করতে হলে পঞ্চায়েত এলাকাগুলিকে পুরসভার অন্তর্ভুক্ত করা প্রয়োজন। কারণ পুরসভার যে পরিকাঠামো রয়েছে, তা কোনও পঞ্চায়েতের নেই।
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চান হাওড়া পুরসভা তার সমগ্র পরিকাঠামো দিয়ে লাগোয়া গ্রামাঞ্চলের পানীয় জল, রাস্তাঘাট ও পরিষেবার উন্নতি করুক।

মুখ্যমন্ত্রীর এই নির্দেশের পরেই রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন দফতর এই সংযুক্তিকরণের প্রক্রিয়া শুরু করেন। নিয়মমতো, পঞ্চায়েত এলাকাটি যে বিধানসভা কেন্দ্রের অধীনে সেই কেন্দ্রের বিধায়ককে এলাকার নাম-সহ সমস্ত তথ্য দিয়ে পুরসভার কাছে আবেদন করতে হয়। পুরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে, সম্প্রতি ডোমজুড় কেন্দ্রের বিধায়ক তথা রাজ্যের সেচমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং দক্ষিণ হাওড়া কেন্দ্রের বিধায়ক ব্রজমোহন মজুমদার হাওড়ার মেয়র রথীন চক্রবর্তীর কাছে সরকারি ভাবে এলাকা সংযুক্তিকরণের প্রস্তাব দিয়েছেন।

পুরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজীববাবু যে গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকাগুলিকে পুরসভার অন্তর্ভুক্ত করতে চেয়ে প্রস্তাব দিয়েছেন, সেগুলি হল বালি জগাছা ব্লকের বালি ঘোষপাড়া, বালি নিশ্চিন্দা, সাপুইপাড়া বসুকাটি, চকপাড়া, চামরাইল, জগদীশপুর, বালি দুর্গাপুর ১ এবং বালি দুর্গাপুর ২। অন্য দিকে, দক্ষিণ হাওড়া বিধানসভা কেন্দ্রের যে গ্রাম পঞ্চায়েতগুলিকে ব্রজমোহনবাবু পুর এলাকার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করতে চেয়েছেন, সেগুলি হল থানামাকুয়া, জোরহাট, দুইল্যা এবং পাঁচপাড়া। পুরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে, যে বারোটি গ্রাম পঞ্চায়েত পুরসভার সঙ্গে সংযুক্ত হতে চেয়ে প্রস্তাব দিয়েছে, সেগুলির মোট জনসংখ্যা পাঁচ লক্ষ ছাড়িয়ে যাবে। তাই ওয়ার্ডের সংখ্যাও বেড়ে যাবে অনেকগুলি।

রথীনবাবু বলেন, ‘‘আমরা প্রস্তাব পেয়েছি। তা পাঠিয়ে দেওয়া হবে রাজ্য পুর ও নগরোন্নয়ন দফতরের মন্ত্রীর কাছে। সেখান থেকে নির্দিষ্ট আইন মেনে এই সংযুক্তিকরণের কাজ হবে।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন