• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

হাওড়ায় বিজেপি নেতা ‘খুনে’ অশান্তি

hgl2
কিঙ্কর মাঝি। নিজস্ব চিত্র

অষ্টমীর রাতে বাড়ির কাছেই গুলিবিদ্ধ হয়েছিলেন হাওড়ার বাগনানের এক বিজেপি নেতা। ভর্তি ছিলেন কলকাতার এনআরএস হাসপাতালে। জমি বিবাদের জেরে তাঁকে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছিল এক পড়শির বিরুদ্ধে। বুধবার দুপুরে কিঙ্কর মাজি (৫২) নামে ওই দলীয় নেতার মৃত্যুতে তৃণমূলের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ তুলে পথে নামল বিজেপি। যার জেরে তেতে ওঠে এলাকা। তৃণমূল অভিযোগ মানেনি। পুলিশের দাবি, মৃত্যুর কারণ করোনা। 

বাগনানের চন্দনাপাড়ার বাসিন্দা কিঙ্করের মৃত্যুর কথা জানাজানি হতেই এ দিন গ্রামীণ হাওড়ার বিভিন্ন জায়গায় দফায় দফায় অবরোধ করে বিজেপি। উলুবেড়িয়ার মনসাতলায় ৬ নম্বর জাতীয় সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ করা হয়। চন্দনাপড়ায় কিঙ্করের পড়শি, অভিযুক্ত পরিতোষ মাজির বাড়িতেও ভাঙচুর চালানো হয়। সেখানেও রাস্তায় টায়ার জ্বালানো হয়। পুলিশ ও র্যা ফ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাস্থল থেকে দুই বিজেপি কর্মীকে আটক করা হয়। ‘খুনের’ প্রতিবাদে আজ, বৃহস্পতিবার ১২ ঘণ্টা বাগনান বন্‌ধ ডেকেছে বিজেপি। সন্ধ্যায় বাগনান স্টেশন রোডে মিছিল করে তারা। পুলিশ অবশ্য এখনই ঘটনাটিকে খুন বলে মানছে না। খুনের মামলাও রুজু হয়নি। হাওড়া (জেলা) গ্রামীণ পুলিশ সুপার সৌম্য রায় বলেন, ‘‘হাসপাতালে অস্ত্রোপচার হয়েছিল কিঙ্করবাবুর। করোনা পরীক্ষায় রিপোর্ট পজ়িটিভ ধরা পড়ে। তাতেই মৃত্যু হয়েছে বলে হাসপাতাল জানিয়েছে। দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পরেই পরবর্তী পদক্ষেপ করা হবে।’’ কিঙ্কর হাওড়া শহরে ফুল বিক্রি করতে যেতেন। শনিবার রাত ১০টা নাগাদ ফেরার সময়ে বেনাপুর মাজিপাড়ার কাছে পরিতোষ আরও দু’জনকে সঙ্গে নিয়ে এসে কিঙ্করের পেটে গুলি চালায় বলে অভিযোগ। জখম বিজেপি নেতাকে প্রথমে মুগকল্যাণ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে স্থানান্তরিত করানো হয় এনআরএসে।

কিঙ্করের স্ত্রী শোভা সেই সময় পুলিশের কাছে পরিতোষ-সহ তিন জনের নামে খুনের চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। অভিযুক্তদের মধ্যে একজনকে পুলিশ শনিবার গ্রেফতার করে। তবে, মূল অভিযুক্ত পরিতোষ এবং তার শাগরেদ এখনও পলাতক।

পরিতোষকে তৃণমূল কর্মী হিসেবেই দাবি করেছে বিজেপি। দলের জেলা (গ্রামীণ) সভাপতি শিবশঙ্কর বেজের অভিযোগ, ‘‘বাগনানে তৃণমূল সন্ত্রাস চালাচ্ছে। আমাদের নেতাকে তৃণমূলের লোকই গুলি করে খুন করে। অভিযোগ জানালেও পুলিশ কিছু করছে না। করোনায় মৃত্যু হয়েছে বলে চালাচ্ছে।’’

পক্ষান্তরে, খুনের চেষ্টায় অভিযুক্তেরা কেউ তৃণমূলের নয় বলে দাবি করেছেন বাগনানের তৃণমূল বিধায়ক অরুণাভ সেন। তিনি বলেন ‘‘প্রতিবেশীদের মধ্যে জমি বিবাদে গোলমাল। এখানে রাজনীতির যোগাযোগ নেই। বিজেপি মৃত্যুকে নিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করছে।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন