• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

নিরাপত্তার ঘেরাটোপে মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠকস্থল

Gurap
প্রস্তুতি: সেজে উঠেছে গুড়াপের কাংসারিপুর ময়দান। ছবি: দীপঙ্কর দে

গুড়াপের কাংসারিপুর ময়দানে আজ, মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসনিক বৈঠক ঘিরে সেজে উঠেছে পুরো এলাকা। নিরাপত্তা বলয়ে ঘিরে ফেলা হয়েছে  বৈঠকস্থল। ৭২ ঘণ্টা আগে থেকেই মঞ্চের দখল নিয়েছে পুলিশ। 

হুগলির (গ্রামীণ) পুলিশ সুপার তথাগত বসু বলেন, ‘‘মুখ্যমন্ত্রীর আসা এবং তাঁর কলকাতায় ফিরে যাওয়ার জন্য সড়ক পথে নিরাপত্তার সব ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। সুষ্ঠ প্রশাসনিক বৈঠকের জন্য পুলিশ প্রস্তুত।’’

প্রশাসন সূত্রে খবর, সোমবার বর্ধমানে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দিষ্ট কর্মসূচি রয়েছে। প্রশাসনিক কাজকর্ম সেরে তিনি রাতে বর্ধমানেই থাকবেন। মঙ্গলবার তিনি বর্ধমান থেকেই হুগলির পথে রওনা দেবেন। দুপুর ২ টো থেকে তাঁর হুগলির বৈঠক শুরু হওয়ার কথা। মুখ্যমন্ত্রীর হুগলির সফরসূচির সবদিক খতিয়ে দেখতে সোমবার জেলাশাসক রত্নাকর রাও, পুলিশ সুপার-সহ জেলার পুলিশ ও প্রশাসনের সব পদস্থ আধিকারিকেরা কংসারীপুর ময়দানে যান। 

 

কড়া: বৈঠকস্থলে পুলিশি নজরদারি। নিজস্ব চিত্র

মুখ্যমন্ত্রীর হুগলির সফরসূচির জন্য কড়া নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছেন মোট চারজন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, ১২ জন ডেপুটি পুলিশ সুপার ছাড়াও ১০০ জন বিভিন্ন পর্যায়ের আধিকারিক। থাকছে ৪০০ মহিলা ও পুরুষ কনস্টেবল। হাওড়া, হুগলি ছাড়াও দুই ২৪ পরগনা, নদিয়া, ঝাড়গ্রাম ও বাঁকুড়া জেলা থেকেও পুলিশ আধিকারিক এবং কর্মীরাও আসছেন বৈঠকস্থলে।

পুলিশ সূত্রে খবর, মুখ্যমন্ত্রীর প্রশাসনিক বৈঠকে জেলা (গ্রামীণ) পুলিশের ১৬টি এবং চন্দননগর কমিশনারেটের সাতটি থানার ওসি এবং আইসি-রা থাকছেন। জেলার সব ডিএসপি, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, কমিশনারেটের ডিসি, এডিসিপি-সহ পদস্থ পুলিশ কর্তারাও বৈঠকে হাজির থাকবেন।      

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন